Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৫ বৃহস্পতিবার, নভেম্বার ২০১৮ | ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

আগামী নির্বাচন খুব চ্যালেঞ্জিং হবে: কাদের

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৫ অক্টোবর ২০১৮, ১১:০৩ PM
আপডেট: ১৫ অক্টোবর ২০১৮, ১১:০৩ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত ছবি


নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, আগামী নির্বাচন খুব চ্যালেঞ্জিং হবে।’ আগামী জাতীয় নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের অসুস্থ রাজনীতির কারণে নেতাকর্মীদের নিজেদের মধ্যে যেন শত্রুতা সৃষ্টি না হয়—সে বিষয়ে সবাইকে সতর্ক করলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আপনাদের কাছে আমার দাবি একটাই: প্রার্থী ৪/৫ যা-ই হোক, নমিনেশন পাবেন একজন। বাকি চারজন যদি ভেতরে ভেতরে বিরোধিতা করেন তাহলে আমাদের জন্য ভালো হবে না। প্রার্থী হওয়ার অধিকার সবারই আছে। অসুস্থ প্রতিযোগিতা কর্মীদের মধ্যে শত্রুতা সৃষ্টি করে। এই শত্রুতা সৃষ্টি করবেন না। 

সোমবার (১৫ অক্টোবর) বিকেলে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তা মোড়ে নির্বাচনি প্রচারপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ সতর্কতা উচ্চারণ করেন।

তিনি আরও বলেন, ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে বিএনপিসহ সরকার বিরোধী দলগুলোর যে জোট হয়েছে এর সমালোচনা করেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ড. কামাল হোসেনের দিকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, ‘হাঁটুভাঙা দল বিএনপি ভর করেছে কোমর ভাঙা এক বুড়ো নেতার কাঁধে। কোনো লাভ হবে না। এই জগাখিচুড়ি ঐক্য জনগণ মানে না, বিশ্বাস করে না। তারা ডাক দিলে জনগণ সাড়া দেবে না।’

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগে ঐক্য থাকলে ৭০ দল ঐক্য করলেও আমাদের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না।’

বিএনপির আন্দোলনের হুমকি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘১৫ থেকে ২০ দিন পরে নির্বাচনের শিডিউল ঘোষণা করবে নির্বাচন কমিশন। দশ বছরে বিএনপির আন্দোরলে এ দেশের মানুষ দেখেনি, আন্দোলন আর কবে হবে। মরা গাঙ্গে জোয়ার আসে না। ১০ বছরে আন্দোলনের জোয়ার আসেনি, আর কয়েক দিনেও আসবে না।’

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দাবি প্রসঙ্গে বলেন, ‘সামনে নির্বাচন, তারা সাত দফা দাবি দিয়েছে। তাদের সাত দফা দাবি মামা বাড়ির আবদার। সাত দফা দফা দাবি কোনো দাবি নয়, এটা হলো ষড়যন্ত্রের দাবি, নির্বাচন বানচালের দাবি। জনগণ কোনো আন্দোলন চায় না, জনগণ নির্বাচন চায়।’

আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের অসুস্থ রাজনীতির কারণে কর্মীদের মধ্যে যাতে শত্রুতা সৃষ্টি না হয় সে ব্যাপারে নির্দেশনা দেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘স্লোগান পাল্টা স্লোগান দিয়ে নমিনেশন পাওয়া যাবে না, রং-বেরঙ্গের পোস্টার নমিনেশন দেবে না। যারা জনগণের সঙ্গে ভালো আচরণ করে না, চাঁদাবাজি করে, অপকর্ম করে তাদের মনোনয়ন দেওয়া হবে না। ভালো হয়ে যান, কেউ অপকর্ম করবেন না, কেউ চাঁদাবাজি করবেন না। আওয়ামী লীগে দখলদার, চাঁদাবাজদের জায়গা নেই।’

কাদের বলেন, ‘আপনাদের কাছে আমার দাবি একটাই, প্রার্থী ৪/৫ জন যাই হোক, নমিনেশন পাবেন একজন। বাকি চারজন যদি ভেতরে ভেতরে বিরোধিতা করেন তাহলে আমাদের জন্য ভালো হবে না। প্রার্থী হওয়ার অধিকার সবারই আছে। অসুস্থ প্রতিযোগিতা কর্মীদের মধ্যে শত্রুতার সৃষ্টি করে। এই শত্রুতা সৃষ্টি করবেন না।’

দলের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আগামী নির্বাচন হবে খুব চ্যালেঞ্জিং। এই নির্বাচনে দেশি-বিদেশি অনেক ষড়যন্ত্র আছে। আওয়ামী লীগে ঐক্য থাকলে কেউ নির্বাচনে পরাজিত করতে পারবে না।’

Bootstrap Image Preview