Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৫ শনিবার, ডিসেম্বার ২০১৮ | ১ পৌষ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

নিয়ম না মেনেই জাককানইবি’র কর্মকর্তাদের পদন্নোতি

নিহার সরকার, জাককানইবি প্রতিনিধিঃ
প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৬:৩৪ AM
আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৬:৩৪ AM

bdmorning Image Preview


নিয়ম না মেনেই কর্মকর্তাদের আপগ্রেডেশন হচ্ছে এমন অভিযোগ উঠেছে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে।  

গত ১৭ মে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬০ তম সিন্ডিকেট সভায় এডিশনাল রেজিস্ট্রার/সমমানের ৮টি পদ সৃষ্টি করা হয় । সেই প্রেক্ষিত বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি দফতরে ৮টি নতুন পদ সংযোজিত হল। তবে এখন পর্যন্ত কেউ নিয়োগপ্রাপ্ত হয় নি সেই পদে। তবে আজ ৬১ তম সিন্ডিকেট সভায় পদন্নোতি প্রাপ্তরা মনোনিত হলে সেই পদ এর দায়িত্ব গৃহণ করবে। যেখানে পদন্নোতি প্রাপ্তরা দায়িত্ব পাবেন এডিশনাল রেজিস্ট্রার/সমমানের পদে।

যা ইউজিসির প্রণীত নিয়মের সাথে সাংঘর্ষিক। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ম্যানেজমেন্ট বিভাগ এর পরিচালক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) খন্দকার হামিদুর রহমান ও একই বিভাগের সহকারী পরিচালক হাছিনা পারভীন কতৃক স্বাক্ষরিত জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পদ ছাড়করণ প্রসঙ্গে প্রেরিত বিজ্ঞপ্তিতে (স্মারক নংঃ ইউজিসি/প্রশাঃ/পাবঃবিশ্বঃ/৩৫৯/২০১৫/৬২৬২) উল্লেখিত সাধারণ শর্তসমূহের মধ্যে  ‘গ’-তে লিখিত আছে শিক্ষক কর্মকর্তার ক্ষেত্রে সকল শূন্য পদ উন্মুক্ত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে এবং ‘ঙ’-তে লিখিত আছে যে কোন শূন্য পদের বিপরীতে আপগ্রেডেশন দেওয়া যাবে না।

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন সৃষ্ট এডিশনাল রেজিস্ট্রার/সমমানের পদে কেউ নিয়োগপ্রাপ্ত নেই তাই ইউজিসির শর্ত অনুযায়ী (ঙ নং শর্ত মতে) শূন্য পদে কর্মকর্তাদের আপগ্রেডেশন সম্ভব নয়।

অন্যদিকে, আপগ্রেডেশন এর অন্য নিয়ম অনুযায়ী ডেপুটি রেজিস্ট্রার-এ উন্নিত হতে হলে ১০ বছর ও সেখান থেকে এডিশনাল রেজিস্ট্রার বা সমমান পদে দায়িত্বপ্রাপ্ত হতে হলে কমপক্ষে ৬ বছর কর্মরত থাকার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। সেই সাথে শূন্য পদে নিয়োগ ব্যতিত আমাদের এখানে আপগ্রেডেশন হয়নি।

আর সেটা হলে ইউজিসি’র নিয়ম বহির্ভূত হবে। ইউজিসি থেকে ছাড়কৃত এনে পরবর্তীতে নিয়োগ করা যায় এমনটাই জানিয়েছে, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় এর রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মোঃ ওহিদুজ্জামান। 

আপগ্রেডেশন এর বিষয়ে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় এর ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার কৃষিবিদ ড. হুমায়ুন কবীর বলেন, অন্যান্য পদের আপগ্রেডেশন এর মতোই এটা। শূন্য পদের বিপরীতে এই আপগ্রেডশন নয়। ওই পদ শূন্যই থাকবে। আপগ্রেডেশনের মধ্য দিয়ে স্বাভাবিক ভাবেই এডিশনাল রেজিস্ট্রার/সমমানের পদে উন্নিত হওয়া যায়। শূন্য পদ এখানে সমস্যা নয়। আর এডিশনাল রেজিস্ট্রার/সমমানের পদে দায়িত্ব প্রাপ্ত হতে হলে ১২ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।

নতুন সৃষ্ট এই পদ ইউজিসি কতৃক ছাড়কৃত কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার বলেন, ইউজিসি ছাড়কৃত বলেই হচ্ছে।

তবে রেজিস্ট্রার দফতরের একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে, এই আপগ্রেডেশন নিয়ে কোন ছাড়করণ পত্র আসে নি ।

অন্যদিকে, গত ৬ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭ কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত একটি চিঠি প্রেরণ করা হয় বিশ্ববিদ্যালয় এর উপাচার্য ও সভাপতি, নীতিমালা প্রণয়ন কমিটি বরাবর।

যেখানে তারা দাবি করে, এই পদে আপগ্রেডেশন করার কোন সুযোগ নেই ইউজিসির নিয়ম অনুযায়ী । আর যে  প্রক্রিয়ায় আপগ্রেডেশন করা হচ্ছে তা বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন কতৃক ছাড়কৃত নয় । এমনকি কোন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পর্যন্ত করা হয়নি তাই এই আপগ্রেডেশন প্রক্রিয়া সঠিক নয় বলে দাবি করেছেন তারা।

এবিষয়ে শিক্ষক সমিতির সভাপতি তপন কুমার সরকার বলেন-এই প্রক্রিয়াটি বিতর্কের সৃষ্টি করেছে যার কোন দায় আমাদের পড়ে না। কেননা বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন নিয়ম সংশোধন বা পর্যালোচনা করা হলে সেখানে শিক্ষক প্রতিনিধি থাকে কিন্তু এই আপগ্রেডেশন এর নিয়ম নিয়ে সভায় আমাদের কোন প্রতিনিধি রাখে নি। তারা নিজেরাই এমনটা করেছে। আর তাই তাদের মধ্যেই নিয়ম তান্ত্রিক জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে।

শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম বলেন, যে প্রক্রিয়ায় আপগ্রেডেশন হচ্ছে তা একটি বিতর্কিত ভাবনা যা নিয়ম বহির্ভূত। এই প্রক্রিয়া অবলম্বন করে আপগ্রেডেশন হতে পারে না কেননা এটি ইউজিসি’র নিয়ম বহির্ভুত ।

উল্লেখ্য বিশ্ববিদ্যালয়টি ২০০৬ সালে প্রতিষ্ঠিত। সদ্য ১২ বছরে পা দেওয়া বিশ্ববিদ্যালয়টির পদন্নোতি’র ক্ষেত্রে যে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে তার সমাধান আনতে পারে বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার বয়স ,উল্লেক্ষিত অভিজ্ঞতার বয়সের হিসাব, ইউজিসির নিয়োগ ও আপগ্রেডেশন এর নিয়ম সেই সাথে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে চলমান নিয়ম।

Bootstrap Image Preview