Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৮ বৃহস্পতিবার, অক্টোবার ২০১৮ | ২ কার্তিক ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

আজ বাংলাদেশের রাজনীতি আশঙ্কা, সংশয় এবং আতঙ্কে ভরা: আ স ম রব

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৭:৩৪ PM
আপডেট: ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৭:৩৪ PM

bdmorning Image Preview


সুলতান মাহমুদ আরিফ, পুরান ঢাকা প্রতিনিধি

আ স ম রব বলেছেন, আজকের প্রোগ্রামে ৬০-৭০% যুবক দিয়ে ভরপুর। আগামী নেতৃত্বে যুবকদের অবদানে সামনের সম্ভাবনার দিকে এগিয়ে যাবে রামগতি। আজ বাংলাদেশের রাজনীতি আশঙ্কা, সংশয় এবং আতঙ্কে ভরা। এই রুপ ভয়াবহ রুপ থেকে একমাত্র যুবকদের মাধ্যমেই বেরিয়ে আসা সম্ভব বলে তিনি বিশ্বাস করেন।

শুক্রবার রাজধানী ঢাকার সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং স্কুল এন্ড কলেজ অনুষ্ঠিত রামগতি উপজেলা কল্যাণ সমিতির "রামগতি উৎসব-২০১৮" অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

১৯৭১ সালের ২রা মার্চ স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম পতাকা উত্তোলনকারী আ.স.ম আব্দুর রব বলেন, রামগতি সমিতিকে সকল মত আর দলের উর্ধ্বে উঠে একটি নিরপেক্ষ সমাজ সেবামূলক সংগঠন হিসাবে এগিয়ে যেতে হবে।

তিনি আরো বলেন, রামগতিতে এত সম্ভাবনাময় ব্যক্তিবর্গ রয়েছেন তা তিনি ভাবতেই পারেননি!

তিনি রামগতির কল্যাণকে দু'ভাগে ভাগ করেন। একটি হল "রামগতির কল্যাণ" এবং অন্যটি" রামগতির মানুষের কল্যাণ"।

তিনি রামগতি সমিতির প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, রামগতি সমিতির উদ্দেশ্য হওয়া চাই এই দু'উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে এগিয়ে যাওয়া।

আ.স.ম আব্দুর রব আরো বলেন, বাংলাদেশের পতাকা যতদিন থাকবে, ততদিন বাংলাদেশের জমিনে এই রামগতি নামক ভূ-খণ্ডটিও চির ভাস্কর হয়ে থাকবে। এ ছাড়া ও তিনি বর্তমানে রামগতির নেতৃত্ব দানকারী নেতৃবৃন্দের প্রতি ভিবিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড সম্পাদন করার জোর দাবি জানান। রামগতিকে তিনি বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ একটি উপজেলা বলেও বিশ্বাস করেন।

তিনি বলেন, রামগতিতে যদি কিছু দিন আগে ২০০ বছরের ধ্বংসযজ্ঞ জাহাজ পাওয়া যায়! এতে বিষ্ময়ের কিছু নাই যে, রামগতির মাটির নিচে আছে প্রচুর তৈল আর গ্যাস।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথিদের মধ্যে অন্যতম রামগতি এবং কমলনগরের সফল এমপি আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, এটি শুধু উৎসবের নাম নয়! এটি একটি রামগতির মিলনমেলা।

তিনি বলেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি নির্বাচনে জয় লাভ করার পর থেকে পিঁছিয়ে পড়া রামগতির উন্নতির জন্য কাজ করেন অবিশ্রান্তভাবে। তিনি তাঁর কৃতিত্ব স্বরুপ সর্বনাশা মেঘনা নদীর করাল ঘ্রাস থেকে রামগতিবাসীকে রক্ষার নিমিত্তে বেড়ি বাঁধের কথা ও উল্লেখ করেন।

এ ছাড়াও তিনি রাস্তার কাজ সহকারে তাঁর আমলের বিভিন্ন উন্নয়নমুখী কার্যক্রমের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেন। সর্বশেষ তিনি 'রামগতি উপজেলা সমিতি'কে একতাবদ্ধ হয়ে কাজ করার অনুরোধ জানান।

লক্ষ্মীপুর জেলা সমিতির গত ৮ মাস ধরে কমিটি জটিলতার দন্ধের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, রামগতি উপজেলা সমিতিতে এমনটি হবে না বলে আমার বিশ্বাস।

এছাড়াও আরো বক্তব্য রাখেন রামগতি উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল ওয়াহেদ, এডভোকেট শরীফ আহমদ, বাংলাদেশ গার্মেন্টস সমিতি চট্টগ্রামের সহ সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, রামগতি আহমদিয়া কলেজের অধ্যাপিকা জামসেদা বেগম, বাংলাদেশ স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি ( বিএনপি) শফিউল বারী বাবুর সহধর্মিণী ও অর্পন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা বিথীকা বিনতে হোসাইন, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সদস্য এস এম শিব্বির আহমদ, রামগতি উপজেলা কল্যাণ সমিতির সমন্বয় আহ্বায়ক মুনির চৌধুরী শামিম ও জসিম উদ্দিন।

অনুষ্ঠানে মিডিয়া পাটনার হিসাবে ছিলো; Unitednews24. com এবং নোয়াখালী প্রতিদিন। এছাড়াও হিমাচল এক্সপ্রেস, গ্রীন ঢাকা, অনিক ক্যাটারিং সহযোগিতা করে।

Bootstrap Image Preview