Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৯ শুক্রবার, অক্টোবার ২০১৮ | ৪ কার্তিক ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

গাইবান্ধায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বেড়িবাঁধ ভেঙে পাঁচটি গ্রাম প্লাবিত

আরমান হুসাইন শারদ
সাব এডিটর
প্রকাশিত: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৪:১৭ AM
আপডেট: ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৮:৪৫ AM

bdmorning Image Preview


গাইবান্ধার ব্রহ্মপুত্র নদের প্রবল পানির চাপে ফুলছড়ি উপজেলার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে ৩৫০ হেক্টর ফসলি জমিসহ ভেঙে পাঁচটি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে করে আমনসহ বিভিন্ন ফসল তলিয়ে গেছে।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় ব্রহ্মপুত্র নদের পানি ফুলছড়িঘাট পয়েন্টে বিপদসীমার ৭ সে.মি. উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়।

জানা যায়, সকালে ফুলছড়ি উপজেলার কঞ্চিপাড়া-কাইয়ারহাট বন্যা নিয়ন্ত্রণ বেড়িবাঁধের কঞ্চিপাড়া এলাকায় ২০০ ফুট অংশ ভেঙে যায়। এতে করে কঞ্চিপাড়া ইউনিয়নের পূর্ব কঞ্চিপাড়া, কাইয়ারহাট ও পাশ্ববর্তী উড়িয়া ইউনিয়নের খলাইহারা, মশামারি ও মধ্য উড়িয়া গ্রামের নিম্নাঞ্চল তলিয়ে যায়। এসব গ্রামের দুই শতাধিক মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন। এছাড়া এক গ্রাম থেকে আরেক গ্রামের সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হয়ে পড়েছে।

উড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মহাতাব উদ্দিন বলেন, বেড়িবাঁধটি ভেঙে যাওয়ায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী ও প্রায় আড়াই হাজার মানুষকে সকাল থেকেই ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। সকালে প্রশাসনের লোকজন এসে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে গেছেন। পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা বালুর বস্তা ফেলে ভেঙে যাওয়া রাস্তার অংশটি মেরামত করে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

বেড়িবাঁধ ভাঙার খবর পেয়ে ফুলছড়ি উপজেলা কৃষি অফিসার মো. আসাদুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বলেন, বেড়ি বাঁধ ভেঙে কঞ্চিপাড়া ও উড়িয়া ইউনিয়নের ৩৫০ হেক্টর জমির আমন ক্ষেতসহ বিভিন্ন ফসল তলিয়ে গেছে। তবে পানি দীর্ঘস্থায়ী না হলে ফসলগুলো রক্ষা পাবে।

অপরদিকে সাঘাটা উপজেলার জুমারবাড়ি, হলদিয়া, ভরতখালী, সাঘাটা ইউনিয়নের সার্বিক বন্যা পস্থিতিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। নতুন করে কোন গ্রাম প্লাবিত হয়নি।

Bootstrap Image Preview