Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২০ বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বার ২০১৮ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

'নো ভ্যাট অন এডুকেশন' আন্তর্জাতিক আন্দোলনের সূর্যালোক

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৪:৩৯ AM আপডেট: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৫:২০ AM

bdmorning Image Preview
আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত ছবি


ফারুক আহমাদ আরিফ

ভারতীয় উপমহাদেশটি মূল কম্পমান। এখানকার নদী-নালা, খাল-বিলে যেমন প্রায়ই সময়ই পানিতে ভরপুর থাকে। পানির দোলায় নাচতে থাকে চারপাশ তেমনি এখানকার মানুষগুলোর কার্যক্রমও এমন চঞ্চল। ১৭৫৭ সালে ইস্ট-ইন্ডিয়া কোম্পানির বিশ্বাসঘাতকতায় বাংলার সূর্য যেমন ইংরেজ বেনিয়াদের ঘর আলোকিত করেছিল। তেমনি ভারতবর্ষের অর্থে ইংল্যান্ডে শিল্প-বিপ্লব সংগঠিত হয়েছিল। আজ যে যুক্তরাজ্যের এত সুন্দর সুন্দর আলিশান স্থাপত্য এর প্রতিটি বালুকণায় মিশে আছে ভারতবাসীর রক্ত, ঘাম ও সম্পদের অংশ।

এক সময় তো ইংল্যান্ডের শোষণের সূর্য প্রথিবীকেই গ্রাস করে রেখেছিল। তাদের অত্যাচার-নির্যাতন আর নিষ্পেষণের ইতিহাস আনন্দময় পৃথিবীটাকে কলুষিত করে ফেলেছিল। সেই ইংরেজদের অত্যাচার থেকে ভারতবাসীকে মুক্ত করতে মুজাদ্দেদ আলফেসানী থেকে আন্দোলন শুরু। সেই আন্দোলন এখন মানুষের রক্তে মিশে গেছে। শুধু ইংরেজদের তাড়ানো নয় বরং প্রাচীনকাল থেকে বৈরি পরিবেশে নিজেদের টিকিয়ে রাখতে এ অঞ্চলের মানুষরা অধিকার আদায়ে আন্দোলন-সংগ্রাম করে আসছে, করছে এবং করে যাবে। আর মানুষের জন্মই হয় একটি আন্দোলন। সে যে পর্যায়ক্রমে গড়ে উঠে তা নি:সন্দেহে একটি আন্দোলন। প্রতিটি প্রাণীই এই আন্দোলনের অংশ।

তবে ইংরেজদের হাজারো দোষের মধ্যেও ভালো যে দিকটি ছিল তা হলো তারা ভারতবর্ষে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে শিক্ষাব্যবস্থা চালু করেছিল যদিও নিজেদের প্রয়োজনে। আগের শিক্ষাব্যবস্থা ছিল সম্পূর্ণ গুরু নির্ভর। এই ভূ-গর্ভে পূর্তগিজ থেকে শুরু করে ব্রিটিশ শোষণের বিরুদ্ধে আন্দোলন তসবিহ দানার মতো একের পর একটা চলতে থাকে। বিশেষত ১৮৩১ সালে কলকাতার একটি মাসিক পত্রিকায় ইংরেজদের শোষণের বিরুদ্ধে যে প্রতিবাদের স্রোত তৈরি হয় তার জন্যে ১৮৩৮ সালের ১২ মার্চ উপমহাদেশের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে ‘সাধারণ জ্ঞানাপোর্জিকা সভা’ দিয়েই ছাত্রদের আন্দোলনের বীজ বোপিত হয়। সেই বৃক্ষটি ডালপালা ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আন্দোলনের মহাকাশে ছাপিয়ে যায়। শুধু বাংলাদেশে নয় ব্রিটিশ ভারতবর্ষে অসংখ্য ছাত্র আন্দোলন হয়েছে। বিশেষ করে ১৯৪৭ সালের দেশ ভাগের আন্দোলনেও শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ ছিল উল্লেখযোগ্য।
তবে আমরা সেদিকে যাচ্ছি না। আমাদের গন্তব্য নো ভ্যাট অন এডুকেশনের বিশ্বব্যাপী আবেদন। তথা একটি আন্তর্জাতিক আন্দোলনে পরিণত হওয়ার গল্প। ২০১৫ সালের ৪ জুন জাতীয় সংসদে বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বেসরকারি  বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ ও ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের শিক্ষার ওপর ১০ শতাংশ ভ্যাট বা কর আরোপ করে। পরবর্তীতে ২৯ জুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সংশোধনীতে ৭ দশমিক ৫ শতাংশ ভ্যাট বহাল রেখে অর্থবিল ২০১৫ জাতায় সংসদে পাস করে। আমরা সরকারের এই অন্যায় নির্দেশটির বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তুলি। দেশ-বিদেশের শিক্ষার্থীরা আন্দোলনটিতে সাড়া দেয়। যদিও প্রথমে জাতীয় গণমাধ্যমগুলোর উল্লেখযোগ্য অংশগ্রহণ বা সহযোগিতা পাওয়া যায়নি কিন্তু মুশফিক ওয়াদুদ কর্তৃক ১ জুলাই ২০১৫ ইস্যু নং ৩৭৪ 'Anger as tax on private university education agreed' শিরোনামে www.universityworldnews.com এ দীর্ঘ একটি সংবাদ প্রকাশের মাধ্যমে পর্যায়ক্রমে নো ভ্যাট অন এডুকেশন আন্দোলনটি বিশ্বব্যাপী প্রচারিত ও প্রসারিত হতে থাকে। যদিও ২০১০ সালে বর্তমান সরকার-ই বেসরকারি উচ্চশিক্ষার ওপর ৪ দশমিক ৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপ করেছিল। তখনকার ২৬ ও ২৭ জুলাইয়ের ছাত্র-আন্দোলনের ফলে সরকার ভ্যাট প্রত্যাহার করে নেয়। সেই সংবাদটি ২০১০ সালের ২৭ জুলাই www.emancipating-education-for-all.org নামের একটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। এ ছাড়া আর কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি। যাই হোক বাংলাদেশ সম্পর্কে শুধু নেতিবাচক সংবাদই বিশ্ব গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়ে আসছিল কিন্তু ইতিবাচক সংবাদ খুব কমই স্থান পায়। এমনকি ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে বিশ্বের ৬৪টি গণমাধ্যমে ১১৭টি সংবাদ প্রকাশের একটি দলিল এখন পর্যন্ত আমাদের সংগ্রহে রয়েছে।
শিক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চলতে থাকে জুন থেকে। তবে তার আগে বেসরকারি উচ্চশিক্ষা খাতে ভ্যাট আরোপের ইঙ্গিত পেয়ে স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের শিক্ষার্থী আরিফ চোধুরী শুভ ১৪ মে গণমাধ্যমে একটি চিঠি প্রেরণ করেছিল এবং তার আলোকে বাংলাদেশের একাত্তর টেলিভিশন কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে শিক্ষার্থীদের মতামত সংগ্রহ করে একটি সংবাদ প্রকাশ করে আন্দোলনের সূচনাতে সহযোগিতা করে।
জুন, জুলাই, আগস্ট ও সেপ্টেম্বরে ধারাবাহিক কর্মসূচির মাধ্যমে আন্দোলনটিকে আমরা বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ এবং সাধারণ মানুষের মাঝে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দিই। তারও সংবাদ বিশ্ব গণমাধ্যমে প্রচার হতে থাকে। অর্থমন্ত্রীকে মেসেজ প্রেরণ কর্মসূচি চলমানাবস্থায় ৯ সেপ্টেম্বর ইস্ট ওয়েস্ট ইউনির্ভাসিটিতে শিক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণ মানববন্ধনে পুলিশ হামলা ও গুলি চালালে আমরা সেখানে পৌঁছে হাতিরঝিল ব্রিজে একটি মিটিং করে এই সিদ্ধান্তে আসি যে "(১) আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর যেসব পুলিশ হামলা চালিয়েছে, তাঁদের চিহ্নিত করে আইনি প্রক্রিয়ায় বিচারের মুখোমুখি করতে হবে। (২) পুলিশি হামলায় আহত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার ব্যয়ভার রাষ্ট্রকে বহন করতে হবে এবং (৩) দশম সংসদে সপ্তম অধিবেশন চলা অবস্থায় টিউশন ফির ওপর থেকে সাড়ে সাত শতাংশ ভ্যাট প্রত্যাহার করতে হবে।" এই ৩ দফা দাবিতে আগামীকাল ১০ সেপ্টেম্বর (১০ সেপ্টেম্বর-২০১৫) হতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অনির্দিষ্টকালের জন্যে ধর্মঘট চলবে শিক্ষাখাতে ভ্যাট প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত। অবশ্য ইতিপূর্বে সিদ্ধান্ত ছিল ঈদ-উল আজহার পরে চূড়ান্ত আন্দোলনে যাবো কিন্তু ইস্ট ওয়েস্ট ইউনির্ভাসিটিতে হামলা করায় সেই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে ঈদের আগেই চূড়ান্ত কর্মসূচিতে আমরা চলে যাই। দেশের ছাত্র, শিক্ষক, কর্মজীবী, বুদ্ধিজীবীসহ আপামর জনসাধারণ আন্দোলনে সমর্থন ও সহযোগিতা করলে আন্দোলনটি বিস্ফোরণ ঘটে। চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। জাতীয় সকল মাধ্যমের প্রথম এবং প্রধান উপজীব্য বিষয় হয়ে দাঁড়ায় আন্দোলনটি। এমনকি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খোরাক হয়ে দেখা দেয় নো ভ্যাট অন এডুকেশন আন্দোলনটি। ফলে বিশ্বের ৭২টি গণমাধ্যমে (1) www.universityworldnews.com (2) www.quora.com (3) www.Pacific press agency (4) www.alamy.com (5) www.gettyimages.com (6) www.bdchronicle.com (7) www.bbc.com/bengali (8) www.grreporter.info (9) www.findyrreporter.com (10) www.sify.com (11) www.in.news.yahoo.com (12) www.report.newzulu.com (13) www.pakistanaffairs.pk/threads (14) www.turkisweekly (15) www.en.haberler.com (16) www.The Express Tribune (17) www.the peninsula qatar (18) www.yahoo.com (19) www.Newsok (20) www.thehimalayantimes.com (21) www.Baltimore sun (22) httpscommons.wikimedia (23) www.epa.eu/politics-photos (24) www.daijiworld.com (25) hwww.bangladeshchronicle.net (26) www.india-forums.com/news/bangladesh (27) www.banglamirrornews.com (28) www.lainformacion.com (29) www.ians.in/index.php (30) www.hapka.info/archive (31) www.pakistanpost.pk (32) www.arabtimesonline.com (33) www.southpunjabnews.com (34) www.tribune.com.pk (35) www.dawn.com (36) www.Chinapost (37) www.ijet.com (38) www.Muslimnews.uk (39) www.ireport.cnn (40) www.dw.com/bn (41) WWW.avaaz.org (42) WWW.OUTLOOKINDIA.COM (43) www.Aljazeera (44) www.wn.com (45) www.redflag.org.au (46) www.news.xinhuanet.com (47) www.defence.pk (48) www.globalvoices.org (49) www.Pressexaminer (50) www.Ooyuz (51) www.miprobashi.com (52) Httpscommons.wikimedia (53) www.uk.news.yahoo.com (54) www.frontier/index (55) www.voabangla.com (56) www.wikinow.com (57) www.everything.explained.today (58) www.Accordancevat.com (59) www.asianews.network (60) www.wsws.org (61) www.monitor.icef.com (62) www.linkedin.com (63) www.economynext.com (64) www.capitalmedia.lk (65) www.island.lk/index (66) www.washingtonpost.com (67) www.yourcommonwealth.org(68) www.taxrates.com (69) www.dreamstime.com (70) www.citizensreportgy.com (71) www.ap.org ও (72) www.afp.com এ ১৩১টি সংবাদ ও দুই শতাধিক ছবি  প্রচারিত, প্রকাশিত হয়ে আন্দোলনটি একটি বিশ্ব আন্দোলনে পরিণত হয়। বিশ্বের প্রথম কোন ছাত্র আন্দোলন বিশ্বব্যাপী সমাদৃত ও প্রশংসিত হয়।
'নো ভ্যাট অন এডুকেশন' আন্দোলনের পর শ্রীলঙ্কা, গ্রিসসহ বিভিন্ন দেশে শিক্ষাখাতে ভ্যাট আরোপের প্রতিবাদে তারা 'নো ভ্যাট অন এডুকেশন' নামে আন্দোলন করে যাচ্ছে। 'নো ভ্যাট অন এডুকেশন' বিশ্বের বুকে একমাত্র শান্তিপূর্ণ আন্দোলন। ইতিপূর্বে বিশ্বে আন্দোলন অর্থই হাঙামা, ভাংচুর থাকলেও 'নো ভ্যাট অন এডুকেশন' এর শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের পর এখন বিশ্বে আন্দোলনের মোড় ঘুরে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের সূচনা হয়েছে। আজ ১৪ সেপ্টেম্বর 'নো ভ্যাট অন এডুকেশন' এর ৩য় বর্ষ পূর্তি। আমাদের দাবি বিশ্বে কোথাও যেন শিক্ষাখাতে ভ্যাট আরোপ করা না হয়। আজ বাংলাদেশে ভ্যাটমুক্ত শিক্ষা দিবস পালিত হচ্ছে। জাতিসংঘ এই ১৪ সেপ্টেম্বরকে ভ্যাটমুক্ত শিক্ষা দিবস ঘোষণা করুক।  'নো ভ্যাট অন এডুকেশন' আন্দোলনের সাথে সম্পৃক্ত সবাইকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।
সাথে সাথে বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রিপরিষদকে ধন্যবাদ শিক্ষাখাতে ভ্যাট প্রত্যাহার করে সুন্দর সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্যে।  

লেখক: মুখপাত্র; নো ভ্যাট অন এডুকেশন
ইমেইল:[email protected]

Bootstrap Image Preview