Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৫ শনিবার, ডিসেম্বার ২০১৮ | ১ পৌষ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

গাড়ি গেলেই দুলতে থাকে সেতু!

মোঃ মাসুদ রানা
সাব এডিটর
প্রকাশিত: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১২:৩৫ PM
আপডেট: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৪:৪৭ PM

bdmorning Image Preview


উপর দিয়ে গাড়ি গেলেই দুলতে থাকে সেতু। এমনই বিপজ্জনক অবস্থা মুর্শিদাবাদের বহরমপুরের রামেন্দ্রসুন্দর ত্রিবেদী সেতুর। অথচ তা সত্ত্বেও হেলদোল নেই প্রশাসনের।

এমনই বিপজ্জনক অবস্থা ভারতের মুর্শিদাবাদের বহরমপুরের রামেন্দ্রসুন্দর ত্রিবেদী সেতুর। তবে সেতুটি বিপজ্জনক অবস্থায় থাকলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখনো কোনো পদক্ষেপ নেয়া হয়নি বলে ভারতীয় গণমাধ্যমে উল্লেখ করা হয়েছে।

১৯৬৭ সালে তৈরি হয়েছিল এই সেতুটি। পঞ্চাশ বছর পেরনো এই সেতুই ১৯৯৯ সালে ভয়াবহ দুর্ঘটনার সাক্ষী ছিল।

১৯৯৯ সালের ৬ মে মালদহ থেকে কলকাতাগামী সরকারি বাস এই সেতুর রেলিং ভেঙে নদীগর্ভে তলিয়ে যায়। রাতের দুর্ঘটনায় ঘুমন্ত অবস্থায় ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছিল। ২০১১ সালে একটি বেসরকারি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ব্রিজের রেলিং ভেঙে ঝুলে পড়ে। প্রশাসনের তৎপরতায় সেবার প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি।

কয়েক মাস আগেই মুর্শিদাবাদের দৌলতাবাদেই বাস দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন ৪৪জন যাত্রী। তার পরেও হুঁশ ফেরেনি প্রশাসনের। দুর্বল রামেন্দ্রসুন্দর সেতুর বিভিন্ন জায়গায় ফাটল ধরেছে, ভেঙেছে রেলিংও।

সেতুটির বিভিন্ন জায়গা খসে কঙ্কাল বেরিয়ে গেছে। এমনতি ভেঙে গিয়েছে ফুটপাতও।

জায়গায়, জায়গায় এভাবেই বেরিয়ে এসেছে সেতুর কঙ্কাল। এমনকী ভেঙে গিয়েছে ফুটপাতও। স্থানীয়দের অভিযোগ, গাড়ি গেলেই সেতু কাঁপে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, গাড়ি গেলেই সেতু কাঁপে। এমন দুর্বল সেতু দিয়ে অবাধে চলছে ভারী যানবাহন। একই সঙ্গে ঝুঁকি নিয়ে যাচ্ছে স্কুল বাসও। প্রতিদিন প্রায় ছয় থেকে সাত হাজার মানুষ এই সেতু দিয়ে যাতায়াত করেন।

দুর্বল সেতু দিয়েই অবাধে চলছে ভারী যানবাহন। একই সঙ্গে ঝুঁকি নিয়ে যাচ্ছে স্কুল বাসও। প্রতিদিন প্রায় ছয় থেকে সাত হাজার মানুষ এই সেতুর উপর দিয়ে যাতায়াত করেন।

এই সেতুটির রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের। সেতুটি তৈরি করে পূর্ত দফতর। জেলা প্রশাসনের কর্তারা জানিয়েছেন, সেতুর অবস্থা খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সাধারণ মানুষের আশঙ্কা, অবিলম্বে ব্যবস্থা না নিলে যে কোনওদিন বড়সড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে এই সেতুতে।

Bootstrap Image Preview