Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৬ বুধবার, সেপ্টেম্বার ২০১৮ | ১১ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

'রাস্তায় আওয়ামী লীগের লোকজন মেয়েদের ধর্ষণ করেন'

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ০৮:৩৯ PM আপডেট: ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ০৮:৩৯ PM

bdmorning Image Preview


আসাদুজ্জামান সাজু, লালমনিরহাট প্রতিনিধি:

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, বাংলাদেশে এখন একদলীয় শাসন চলছে। রাস্তায় আওয়ামীলীগের লোকজন মেয়েদের ধর্ষণ করেন। পুলিশ মামলা নিচ্ছেন না। দেশের মানুষের কোনো নিরাপত্তা নেই। আমার শাসনামলে মানুষ নিরাপদে ছিল। খুন হত না। আর এখন খুনের মহোৎসব চলছে। নারী ও শিশু ধর্ষণ, বাল্য বিয়ে আশঙ্কাজনকভাবে বেড়েছে।

তিনি সোমবার সন্ধ্যায় লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার কুমড়ীরহাট এসসি স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে জাতীয় পার্টি আয়োজিত এক জনসভা প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

এরশাদ বলেন, দেশের মানুষ অশান্তিতে আছে, মানুষের শ্বাস বন্ধ হয়ে গেছে, মানুষ মুক্তি চায়। ব্যাংকের টাকার লুট হচ্ছে। বর্তমান সরকারের জনপ্রিয়তা এখন শুন্য। মানুষ জাতীয় পার্টির জন্য প্রস্তুত।

গণঅভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত সামরিক শাসক এরশাদ তার শাসনামলের সঙ্গে বর্তমান সময়ে তুলনা করে বলেন, আমি জেলা তৈরী করেছি, আমি উপজেলা পরিষদ করেছি, রাস্তা পাকা করেছি, স্কুল, কলেজ সরকারী করেছি। মসজিদ ও মন্দিরের বিদ্যুৎ বিল মাফ করে দিয়েছি। আমার সময় ছিলো শুধু উন্নয়ন। আমরা একদলীয় শাসন চাই না, জনগণের শাসন চাই। মানুষ পরিবর্তন চায়। এভাবে মানুষ বাঁচতে পারে না।

তিনি হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য আগামী সংসদ নির্বাচনে ৩০টি আসন বরাদ্দ দিয়ে বলেন, এখন মন্দির ভাঙ্গা হচ্ছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের উপর হামলা হচ্ছে। আমার সময় হিন্দুরা নিরাপদে ছিলো, আমি ক্ষমতায় গেলে তারা আবার নিরাপদে থাকবে।

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূতের দায়িত্ব প্রাপ্ত এরশাদের পুরো বক্তব্য ছিলো আওয়ামী লীগের সমালোচনায় মুখরিত। যদিও তার দলের নেতারা এখনও ওই সরকারের মন্ত্রিত্বে আছেন। তবে বিএনপি নিয়ে তিনি কোনো কথাই বলেননি।

সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ বলেন, আমি ছয় বছর জেল খেটেছি। জেল থেকে নির্বাচন করে রংপুরের পাঁচটি আসনে জয়লাভ করেছি। জেলে ভালো করে খেতে পারি নাই। ইফতার পর্যন্ত করতে পারিনি। আমাকে সংসদে যেতে দেয়া হয়নি।

জনসভায় দলের অবস্থান মজবুত করতে নেতা-কর্মীদের সক্রিয় হওয়ার তাগিদ দিয়ে জাপা চেয়ারম্যান এরশাদ আগামী নির্বাচনে লালমনিরহাট-১ (হাতীবান্ধা-পাটগ্রাম) আসন থেকে তার ভাতিজা মেজর (অব) খালেদ আখতার, লালমনিরহাট-২ (কালীগঞ্জ-আদিতমারী) আসন থেকে রোকন উদ্দিন বাবুল ও লালমনিরহাট-৩ (সদর) আসন থেকে তার ছোট ভাই জিএম কাদেরের নাম ঘোষনা করেন।

এরশাদ বলেন, জাতীয় পার্টির প্রতি জনগণের আস্থা ফিরে এসেছে। মানুষ মনে করে এই সরকারের পরিবর্তে জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় এলে দেশ ভালো চলবে।

আদিতমারী উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর মান্নান সরকারের সভাপতিত্বে জনসভায় বক্তব্য রাখেন, দলের কো- চেয়ারম্যান জিএম কাদের, স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা, রংপুর সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সমাজ কল্যাণ সম্পাদক রোকন উদ্দিন বাবুল।

Bootstrap Image Preview