Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২১ বুধবার, নভেম্বার ২০১৮ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

তীব্র শীতে কী হবে মায়ের সাথে অনশনে থাকা এই বাচ্চাগুলোর ?

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ জানুয়ারী ২০১৮, ০৫:৫১ PM
আপডেট: ১৪ জানুয়ারী ২০১৮, ০৫:৫১ PM

bdmorning Image Preview


খাইরুল বাশার ।।

জাতীয়করণের দাবিতে টানা ছয়দিন ধরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আমরণ অনশন করছেন স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষকরা। তীব্র শীত উপেক্ষা করে আমরণ অনশনে গতকাল শনিবার পর্যন্ত ১৪৫ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে জানিয়েছেন কর্মসূচি ডাকা সংগঠন স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির মহাসচিব কাজী মোখলেসুর রহমান।

গত ছয়দিন ধরে ২ বছরের বাচ্চাকে নিয়ে প্রেসক্লাবের সামনে অনশনে আছেন গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার আলোরভূবন স্বতন্ত্র মাদ্রাসার শিক্ষিকা মানজুমা বেগম। তিনি ২০১২ সালে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যোগদান করেন। তিনি বলন, আমার অনেক কষ্ট হয়। আমাদের দাবি মেনে নেয়া হোক। আমরা আর এখানে থাকতে পারছি না।

১৯৯৮ সালে মালিপারা স্বতন্ত্র মাদ্রাসায় যোগদান করেন আসমা বেগম । তিনিও বাচ্চাকে নিয়ে অনশনে আছেন, তিনি বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের দাবি, আমাদের দাবি মেনে নেয়া হোক। আমরা আর এখানে থাকতে চাচ্ছিনা। এই শীতে আমরা ছোট বাচ্ছা নিয়ে এখানে আছি। আমরা মানুষ গড়ার কারিগর। আমরা যদি বেতন না পাই তাহলে আমরা কীভাবে ভাল শিক্ষা দিতে পারবো?

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা আর সহ্য না করতে পেরে আমরণ অনশনে নেমেছি। যতক্ষণ পর্যন্ত আমাদের দাবি মেনে না নেওয়া হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত আমরা রাজপথ ছাড়বো না। হয় আমরা হাসিমুখে বাড়ি ফিরবো, না হয় রাজপথে মৃত্যুবরণ করবো।’

১৯৮৫ সাল থেকে শেরপুর জেলার কাকুলিরঘের স্বতন্ত্র মাদ্রাসার ইসলাম ও কোরান শিক্ষা বিষয়ে শিক্ষকতা করে আসছেন আবুল কাশেম। তিনি বলেন, ‘আমি কিছু চায়না, আমি আমার শেষ জীবনে দেখে যেতে চাই যে, স্বতন্ত্র মাদ্রাসা শিক্ষকরা বেতন পাচ্ছে। এটা যদি দেখে যেতে পারি তাহলে আমি আর কিছুই চাইনা।’ এর আগে অনশনে স্লোগান দিতে গিয়ে তিনি কয়েকবার মুর্ছা যান।

Bootstrap Image Preview