Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৩ মঙ্গলবার, অক্টোবার ২০১৮ | ৮ কার্তিক ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

বুদ্ধ পূর্ণিমার সরকারি ছুটি একদিন থেকে বাড়িয়ে 'তিনদিন' করা হোক

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ অক্টোবর ২০১৭, ০৫:৫২ PM
আপডেট: ১৪ অক্টোবর ২০১৭, ০৫:৫২ PM

bdmorning Image Preview


রাহুল বড়ুয়া-

বৌদ্ধধর্মের পবিত্র উৎসবগুলো প্রধানত পূর্ণিমা কেন্দ্রিক। আর এই উৎসবগুলো উপলক্ষেই মূলত বৌদ্ধধর্মাবলম্বীরা ছুটি উপভোগ করে থাকেন। রাষ্ট্রভেদে এ ছুটিগুলোর কোনটি সাধারণ তথা বাধ্যতামূলক ছুটি আবার কোনোটি ঐচ্ছিক ছুটি।

বাংলাদেশে বৌদ্ধদের নানা উৎসবের মধ্যে একমাত্র বুদ্ধপূর্ণিমা তথা বৈশাখীর পূর্ণিমার দিনটিই সরকারি ছুটি হিসেবে বিবেচিত হয়। অন্যান্য পূর্ণিমাতে ছুটি না থাকায় এবং বৈশাখী পূর্ণিমার ছুটি শুধুমাত্র একদিন হওয়াতে কর্মজীবী বৌদ্ধরা পরিবারের সাথে ধর্মীয় উৎসব পালনের খুব একটা সুযোগ পান না। এ নিয়ে বাংলাদেশের বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে চাপা অসন্তোষ রয়েছে।

২০১০ সালের এক সমীক্ষা অনুযায়ী বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার প্রায় ০.৭ শতাংশ বৌদ্ধধর্মের অনুসারী যা প্রায় ১১ লক্ষের কাছাকাছি। ধর্মাবলম্বীর সংখ্যা বিচারে আমাদের দেশে ইসলাম ধর্ম এবং হিন্দু ধর্মের পরেই বৌদ্ধধর্মের অবস্থান। ইসলাম ধর্মের অনুসারীরা দুই ঈদের প্রতিটিতেই তিনদিন করে ছুটি ভোগ করেন যা সম্প্রতি ছয়দিন করার পরিকল্পনা গৃহীত হয়েছে।

এছাড়াও তাঁরা বিভিন্ন ধর্মীয় উৎসবে সরকারি ছুটি উপভোগ করে থাকেন। দেশের হিন্দু ধর্মাবলম্বীরাও বিজয়া দশমী, জন্মাষ্টমীসহ বিভিন্ন ধর্মীয় উৎসবে সরকারি ছুটি উপভোগ করেন।

অন্যদিকে, বৌদ্ধদের বেশিরভাগ ধর্মীয় উৎসবই বিহার কেন্দ্রিক। বিভিন্ন পূর্ণিমাতে তারা পরিবারসহ বিহারে গিয়ে ভাব গাম্ভীর্যের সাথে ধর্মীয় কার্যাদি সম্পন্ন করে থাকেন। মাত্র একদিনের ছুটি পাওয়াতে অনেক ক্ষেত্রেই কর্মজীবী বৌদ্ধরা এ উৎসবগুলো পরিপূর্ণভাবে পালনের সুযোগ পান না। যার কারণে প্রায়ই তাদের কর্মসূত্রের সুবাদে ত্যাগ স্বীকার করে ধর্মীয় কার্যাদি পালন করে পূণ্যকর্ম সম্পাদন থেকে বঞ্চিত থাকতে হয়।

এমতাবস্থায়, বাংলাদেশ সরকারের কাছে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের অাবেদন, অন্তত বুদ্ধ পূর্ণিমা তথা বৈশাখী পূর্ণিমা উপলক্ষে সরকারি ছুটি একদিন থেকে বাড়িয়ে তিনদিন করা হোক।

বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের ভাষ্যমতে, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে বিভিন্ন সফল কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছেন। তাই এদেশের বৌদ্ধরা আশা করছেন, সরকার বৈশাখী পূর্ণিমা উপলক্ষে তিনদিনের ছুটির প্রস্তাব সংসদে উত্থাপন করবেন।

লেখক: শিক্ষার্থী চট্টগ্রাম কলিজিয়েট কলেজ

Bootstrap Image Preview