Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৬ বুধবার, সেপ্টেম্বার ২০১৮ | ১১ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

ভিসিকে ঘুষ দিতে গিয়ে চাকরিপ্রার্থী আটক

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ১০:৪৯ PM আপডেট: ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ১০:৪৯ PM

bdmorning Image Preview


ফারুক হাসান কাহার, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক বিশ্বজিৎ ঘোষকে ৯ লাখ টাকা ঘুষ দিতে গিয়ে আটক হয়েছেন এক চাকরীপ্রার্থী।

গতকাল রবিবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলাভবনের বাংলা বিভাগে অধ্যাপক বিশ্বজিতের অফিস কক্ষে এ ঘটনা ঘটে। পরে রবি ভিসি ছাত্রদের সহায়তায় ঘুষ প্রদানের চেষ্টার অভিযোগে তাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।

ঘুষ প্রদানকারী ওই চাকরি প্রার্থীর নাম ইলিয়াস হোসেন (৩২)। সে পাবনা জেলার সুজানগর থানার মধ্যপাড়া ইউনিয়নের মধুপুর গ্রামের মোঃ আব্দুল হামিদ খানের ছেলে। তিনি পড়াশুনা করেছেন কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে।

জানা গেছে, উপাচার্য অধ্যাপক বিশ্বজিৎ ঘোষ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের নিজ অফিস কক্ষে সকাল ১১টার দিকে আসেন। এর কিছু পরেই ওই চাকরিপ্রার্থীও অফিস কক্ষে প্রবেশ করেন এবং অধ্যাপক বিশ্বজিৎ ঘোষকে বলেন, ‘স্যার আপনার জন্য একটা উপহার আছে।’ এই বলে টেবিলে ৯ লাখ টাকার একটি প্যাকেট রাখেন ইলিয়াস।

টাকা দেখে উপাচার্য ধমক দিলে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেন ইলিয়াস। এ সময় অধ্যাপক বিশ্বজিতের চিৎকারে সাধারণ ছাত্ররা এসে তাকে ধরে ফেলে। এরপর তাকে শাহবাগ থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়।

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি ডিরেক্টর মোঃ গোলাম সারোয়ার বলেন, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য নিয়োগ পান গত জুনে। বিভিন্ন পদে নিয়োগের জন্য সার্কুলার দেয়া হয় এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে। ইলিয়াস ‘অফিসার পদে’ আবেদন করেন। তারপর থেকেই তিনি বিভিন্ন সময়ে অধ্যাপক বিশ্বজিতের কাছে চাকরির জন্য ধর্ণা দিতে থাকেন।

এর আগেও একবার ইলিয়াস অধ্যাপককে ১৪ লাখ টাকা ঘুষ দিতে চান এবং নানা সময়ে চাকরি চেয়ে মোবাইলে নানা ধরণের এসএমএস পাঠান। সেগুলোর প্রমাণও উপাচার্য অধ্যাপক বিশ্বজিতের কাছে আছে বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, এরপরও কোনো ধরণের সাড়া না পেয়ে ইলিয়াস সর্বশেষ ভিসি স্যারের অফিশিয়াল গাড়ির ড্রাইভারকে ম্যানেজ করেন। ড্রাইভারের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলে তিনি ভিসি স্যারের গতিবিধি লক্ষ্য করতেন।

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা রওশন আলম বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব অবকাঠামো না থাকায় আমরা ধানমন্ডিতে অবস্থিত একটি লিয়াজো অফিসে কাজ করছি। ভিসি স্যার সে জন্য ঢাকাতেই আছেন। চাকরির জন্য বেপরোয়া ওই যুবক স্যারকে ফলো করার জন্য ঢাকার কাঁটাবনে অবস্থিত আল-বারাকা টাওয়ারের ১২/বি২ ফ্ল্যাটে থাকা শুরু করেন।

উপাচার্য অধ্যাপক বিশ্বজিৎ ঘোষ বলেন, সকাল ১১টার দিকে আমি আমার অফিসে ছিলাম। এ সময় ছেলেটি আসে। সে আমার টেবিলে একটি ব্যাগ রাখে। এতে কি আছে জানতে চাইলে, সে কিছু না বললে আমি ব্যাগ খুলে দেখি। আমি তাকে ধরে ফেলতে চাইলে সে দৌড় দেয়। এ সময় কলা ভবনের কয়েকজন ছাত্র তাকে ধরে ফেলে আমার অফিসে নিয়ে আসে। পরে আমি তাকে ডিন অফিসে নিয়ে যাই। সেখান থেকে তাকে শাহবাগ থানা পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

শাহবাগ থানার ওসি (তদন্ত) জাফর আলী বিশ্বাস বলেন, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে ঘুষ দিতে চাইলে তারা একজনকে ধরে ফেলে। পরে আমরা গিয়ে তাকে থানায় নিয়ে এসেছি।

Bootstrap Image Preview