Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৯ বুধবার, সেপ্টেম্বার ২০১৮ | ৪ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচনকালীন সরকারই দেশ পরিচালনা করবে: প্রধানমন্ত্রী

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২ জানুয়ারী ২০১৮, ০৮:০৮ PM আপডেট: ১২ জানুয়ারী ২০১৮, ০৮:৪৯ PM

bdmorning Image Preview


নিজস্ব প্রতিবেদক-

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে বলেছেন, চলতি ২০১৮ সালে জাতীয় নির্বাচনের সময় নির্বাচনকালীন সরকার দেশ পরিচালনা করবে। ইতিপূর্বে রাষ্ট্রপতি সকল দলের সাথে আলাপ-আলোচনা করে নির্বাচন কমিশন গঠন করেছেন। আমাদের নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী হবে এর বাইরে যাওয়ার কোন সুযোগ নেই।

প্রধানমন্ত্রী আজ ১২ জানুয়ারি আওয়ামী লীগ সরকারের ক্ষমতা গ্রহণের ৪ বছর পূর্তি উপলক্ষে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সংবিধান অনুযায়ী ২০১৮ সালের শেষ দিকে একাদশ জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কীভাবে নির্বাচন হবে তা আমাদের সংবিধানে স্পষ্টভাবে বলা আছে। সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচনের আগে নির্বাচনকালীন সরকার গঠিত হবে। সেই সরকার সর্বতোভাবে নির্বাচন কমিশনকে নির্বাচন পরিচালনায় সহায়তা করে যাবে।

তিনি বলেন, মহামান্য রাষ্ট্রপতি অনুসন্ধান কমিটির মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন গঠন করেছেন। এই কমিশন ইতিমধ্যে দুটি সিটি করপোরেশনসহ বেশ কিছু স্থানীয় নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার মাধ্যমে জনগণের আস্থা অর্জন করেছে।

প্রধানমন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, আমি আশা করি নিবন্ধিত সকল দল নির্বাচনে অংশ নিবে। দেশের গণতান্ত্রিকধারাকে সমুন্নত রাখতে সহায়তা করবে।

তিনি বলেন, কোন কোন মহল আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করার অপচেষ্টা করতে পারে সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে। জনগণ অশান্তি চায় না। নির্বাচন বয়কট করে মানুষের জান-মালের ক্ষতি করবে এটা আর এ দেশের জনগণ মেনে নিবে না।

জনগণকে ক্ষমতার মালিক সম্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনারাই সকল ক্ষমতার মালিক। কাজেই লক্ষ্য আপনাদেরই ঠিক করতে হবে, আপনারা কি চান।

তিনি জনগণের প্রতি প্রশ্নছুড়ে বলেন, আপনারা কি দেশকে এগিয়ে যাওয়া দেখতে চান? না বাংলাদেশ আবার পিছনের দিকে চলে যাক সেটা দেখতে চান? একবার ভাবুনতো মাত্র ১০ বছর আগে দেশের অবস্থানটা কোথায় ছিল? আপনি কি চান না আপনার সন্তান সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে সাবলম্বী হোক। আপনি কি চান না প্রতিটি ঘরে বিদ্যুতের আলো পৌঁছে যাক? আপনি কি চান না প্রতিটি গ্রামের রাস্তাঘাটের উন্নয়ন হোক? মানুষ দু'বেলা পেট ভরে খেতে পাক? শান্তিতে জীবন-যাপন করুক?

প্রধানমন্ত্রী স্বাধীনতার ৪৭ বছর অতিক্রান্তের কথা উল্লেখ করে বলেন, আমরা দরিদ্র হিসেবে পরিচিত হতে চাই না বরং বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে চাই। মর্যাদাশীল জাতি হিসেবে বাঁচতে চাই। এসব যদি আপনারও চাওয়া হয় তাহলে আমরা সব সময় আপনার পাশে আছি। কারণ আমরা লক্ষ্য স্থির করেছি যে ২০২১ সালে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালে বাংলাদেশ উন্নত সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে বিশ্বের বুকে প্রতিষ্ঠিত করবো। শুধু লক্ষ্য স্থির করেই আমরা বসে নেই সেই অনুযায়ী কর্মসূচি প্রণয়ন করে সেই মোতাবেক কাজও করে যাচ্ছি। আমরা অতীতকে আকড়ে ধরে থাকতে চাই না তবে অতীতকে ভুলেও যাবো না। অতীতের সফলতা, ব্যর্থতা মূল্যায়ন করে ভুলত্রুটি শোধরে নিয়ে সামনে এগিয়ে যাবো।

তিনি বলেন, আমরা যে উন্নয়নের মহাসড়কে যাত্রা শুরু করে সামনে এগিয়ে যাচ্ছি সেখান থেকে আর পিছনে ফিরে তাকানো সুযোগ নেই।

Bootstrap Image Preview