চীন রোহিঙ্গা সমস্যাটির শান্তিপূর্ণ সমাধান চায়: চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশঃ নভেম্বর ১৮, ২০১৭

কূটনৈতিক প্রতিবেদক-

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই বলেছেন, মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ওপর বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড চালাচ্ছে। বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের বন্ধু হিসাবে চীন চায় সমস্যাটি শান্তিপূর্ণভাবে সমাধান করা হোক।

আজ শনিবার (১৮ নভেম্বর-২০১৭) ঢাকায় তাকে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন মেঘনায় স্বাগত জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী-এমপি ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম এমপি।

এখানে দুপুর ১ টা ১ মিনিট থেকে ২টা ৫০ মিনিট পর্যন্ত একটি দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে তিনি রোহিঙ্গা বিষয়ে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে অব্যাহত পরামর্শ ও সংলাপের গুরুত্বের ওপর জোর দেন।

তিনি বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের জন্য মানবিক সহায়তা অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতিও দেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রী মাহমুদ আলী বলেন, সমস্যাটির সমাধান করার জন্য বাংলাদেশ মিয়ানমারের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয়ভাবে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। রোহিঙ্গারা তাদের স্বদেশে ফিরে যাওয়ার ব্যাপারে মর্যাদা এবং নিরাপত্তার বিষয়ে চীনের সমর্থন প্রত্যাশা করে বাংলাদেশ।

বৈঠকে দ্বিপাক্ষিক ও আঞ্চলিক স্বার্থের প্রধান প্রধান বিষয়ে আলোচনা করা হয় বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

আলোচনার সময় চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী গত বছরের অক্টোবরে রাষ্ট্রপতি সি জিনপিংয়ের বাংলাদেশ সফরকালে গৃহীত সিদ্ধান্তগুলির অগ্রগতি সম্পর্কে সন্তোষ প্রকাশ করে চুক্তি স্বাক্ষর করেন।

বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের জন্য আর্থিক সহযোগিতায় অব্যাহত রাখার ব্যাপারে চীনের অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন তিনি।

ওয়াং ই এই অঞ্চলে শান্তি ও সমৃদ্ধির জন্য পারস্পারিক যোগাযোগের প্রয়োজনতার উপর জোর দেন।

চীন ও বাংলাদেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সম্পর্কে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আশা করেন যে, বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চীন পদক্ষেপ নেবে।

এর আগে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, ওয়াং ই দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের বিষয়ে মতবিনিময় করার জন্য এবং উভয় দ্বিপক্ষীয় সফরে তার পারস্পরিক উদ্বেগ নিয়ে আলোচনা করার জন্য বাংলাদেশে এসেছেন।

রাখাইন রাজ্যের রোহিঙ্গা ইস্যুতে তিনি বলেন, বন্ধুত্বপূর্ণ পরামর্শের মাধ্যমে সমস্যার সমাধানের জন্য চীন ও বাংলাদেশ মিয়ানমারের মধ্যে চীন সংলাপ চালিয়ে যাচ্ছে।

বৈঠকে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম-এমপি, পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক এবং বাংলাদেশে চীনের রাষ্ট্রদূত মা মিংকায়িং উপস্থিত ছিলেন।

চলতি বছরের ২৫ আগস্টে মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে সেনাবাহিনীর হামলায় ৬ লাখ ২০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আগামীকাল রবিবার ঢাকা থেকে মিয়ানমারের রাজধানীতে যাওয়ার কথা রয়েছে।

মিয়ানমারে ২০ ও ২১ নভেম্বর পর্যন্ত এশিয়া-ইউরোপ সভা (ASEM) এর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের ১৩তম বৈঠকে যোগ দেবেন।

কমেন্টস