‘ক্যাম্পাসের বাস উল্টো পথেই চলে’!

প্রকাশঃ অক্টোবর ১৩, ২০১৭

খাইরুল ইসলাম বাশার –

ঘড়ির কাটা তখন রাত ৮টা বেজে ২৮ মিনিট।মিরপুর সড়কে ভয়াবহ জ্যাম। তার মূল কারণ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বাস উল্টো পথে এসে সৃষ্টি করেছে সাধারণ মানুষের এমন ভোগান্তির।

গতকাল রাজধানীর কলাবাগান থেকে উল্টো পথে আসতে দেখা যায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ঢাকা মেট্রো ব- ১৪-৯৩৬৭ নাম্বার প্লেট লাগানো একটি বাস। সেই সাথে দেখা যায়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে নিজেরাই রাস্তার দায়িত্ব নিয়ে নিয়েছে। একই সঙ্গে রাস্তায় সাধারণ পরিবহণ চালকদের রাস্তা ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছে।

উল্টো পথে বাস চলছে কেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের প্রশ্ন করা হলে তারা উত্তরে সাড়া না দিয়ে বলে বাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা আছে তাদের জিজ্ঞেস করেন ।

এসময় রাতুল নামে একজন নিজেকে ইতিহাস বিভাগের ছাত্র পরিচয় দিবে বলেন, ক্যাম্পাসের বাস উল্টো পথেই চলবে। আর এটাই স্বাভাবিক। এই নিয়ে এতো কথা বলার কি আছে? আর কিছু লেখতে চাইলে লিখতে পারেন।

প্রসঙ্গত, বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসগুলো মাঝে-মধ্যেই গাড়ি চলাচলের নিয়ম ভেঙে উল্টো পথে চলে। বাসগুলোর উল্টো পথে  চলার ছবি ও প্রতিবেদন বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশের পর গত ২৫ জুলাই বুধবার  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এক অভ্যন্তরীণ বৈঠকে কঠোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো কর্তৃপক্ষ। ঘোষণা করা হয়েছিলো, বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো বাস উল্টো পথে চলাচল করলে ওই বাসের রুট বাতিল করা হবে।

সেই সাথে ঘোষণা দেওয়া হয়েছিলো, যদি কোনো বাস ট্রাফিক আইন ভঙ্গ করেছে এমন অভিযোগ পাওয়া যায় তাহলে সেই অভিযুক্ত বাসের ছবি বা ভিডিওচিত্র যাচাই করে বাসের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। যদিও  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষের এই সাবধানবাণীর পরদিনই উল্টো পথে চলেছে ‘চৈতালী’ বাস।

এর আগে উল্টো পথে গাড়ি না চালাতে গত ২০১৬ সালের মে মাসে রুল জারি করে উচ্চ আদালত। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর কথাও উল্লেখ ছিল। কিন্তু প্রায়ই তা অমান্য করার অভিযোগ উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসের বিরুদ্ধে।

গত জুনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈশাখী পরিবহনের একটি বাস উল্টো পথে চলতে গিয়ে রাজধানীর বিজয় সরণির কাছে একটি দুর্ঘটনা ঘটায়। এতে দুই মোটরসাইকেল আরোহী আহত হন। এই উল্টো পথে চলা নিয়ে ট্রাফিক পুলিশের সঙ্গে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে বেশ কয়েকবার।

ভিডিও

কমেন্টস