জুনাইদ আহমেদ পলককে যুব বিশ্বনেতা ঘোষণা করেছে ডব্লিউইএফ

প্রকাশঃ মার্চ ১৭, ২০১৭

মোহাম্মদ রানা-
পেশাগত কার্যক্রম, সমাজের প্রতি অঙ্গীকার ও বিশ্বের ভবিষ্যৎ গঠনে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ বাংলাদেশের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলককে যুব বিশ্বনেতা-২০১৬ (ওয়াইজিএল) হিসেবে ঘোষণা করেছে সুইজারল্যান্ড ভিত্তিক থিঙ্ক ট্যাঙ্ক ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম (ডব্লিউইএফ)।

বুধবার ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের ওয়েব সাইটে ( http://widgets.weforum.org/ygl-2016/) জুনাইদ আহমেদ পলকসহ ৪০ বছরের কম বয়সী বিশ্বের অন্যান্য যুব বিশ্বনেতাদের নাম ঘোষণা করা হয়। ওয়েব সাইটের ওই তালিকায় প্রকাশিত দক্ষিণ এশিয়ার ১২ যুব বিশ্বনেতার মধ্যে জুনাইদ আহমেদ পলক অন্যতম। তথ্যপ্রযুক্তি ও ইন্টারনেট ভিত্তিক কার্যক্রম প্রসারে অগ্রণী ভূমিকা পালন করায় যুব বিশ্বনেতা হিসেবে তাদের মনোনীত করা হয়েছে।

এর আগে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে তথ্যপ্রযুক্তিতে খ্যাতিমান ব্যক্তিদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়, ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গ, গুগলের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ল্যারি পেজ, আলী বাবার প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মা যুব বিশ্বনেতা হিসেবে মনোনীত হন। এ ছাড়াও অভিনেতা লিওলার্দো ডিক্যাপ্রিওকে যুব বিশ্বনেতার তালিকায় স্থান দেয় ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম।

যুব বিশ্বনেতা হিসেবে মনোনীত হওয়ায় আগামী পাঁচ বছরের জন্য পলককে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের সক্রিয় সদস্য হওয়ার জন্য আমন্ত্রন জানানো হবে। এর ফলে তিনি ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম আয়োজিত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সেমিনার ও ওয়ার্কশপে অংশগ্রহণ করে সক্রিয় ভূমিকা রাখার সুযোগ পাবেন।

জুনাইদ আহমেদ পলক ২০০৮ সালে মাত্র ২৮ বছর বয়সে নাটোর-৪ (সিংড়া) আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং ২০১৪ সালের ১২ জানুয়ারি তাকে বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয়। তিনি ইতিমধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে উদ্ভাবনী, উদ্যোক্তা তৈরি, আইটি এবং আইটি সক্ষম সেবা শিল্পের প্রসার, ই-গভর্নেন্স এবং ই-সেবা প্লাটফর্ম প্রতিষ্ঠার কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে যথেষ্ট দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন।

পলক বর্তমানে বিশ্বের অন্যতম বড় প্রযুক্তি মেলা সিবিট কনফারেন্সে যোগ দিতে জার্মানীর হ্যানোভারে রয়েছেন। টেলিফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি প্রতিবেদককে বলেন, যুব বিশ্বনেতাদের তালিকায় স্থান পাওয়ার খবরটি অত্যন্ত আনন্দের। এর মধ্য দিয়ে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ইভেন্টে ডিজিটাল বাস্তবায়নের অগ্রগতিসমূহ বিশ্ব পরিমণ্ডলে তুলে ধরার সুযোগ তৈরি হলো। বিশ্বের ভবিষ্যত গঠনে এই মনোনয়ন আমাকে আরো অনুপ্রাণিত করবে।

এর আগে গত ২০ জানুয়ারি ওয়াইজিএল-এর নির্বাহী সভাপতি এবং প্রতিষ্ঠাতা ক্লাউড সোয়াব ও পরিচালক ও ওয়াইজিএল এর প্রধান জন ডাটন জুনাইদ আহমেদ পলককে লেখা এক পত্রে তার পেশাগত কার্যক্রম, সমাজের প্রতি অঙ্গীকার ও বিশ্বের ভবিষ্যৎ গঠনে অবদানের মূল্যায়ন করে তাকে ২০১৬ সালে যুব বিশ্বনেতা হিসেবে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে বলে জানান। ১৬ মার্চ তা সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়।

Advertisement

কমেন্টস