দেশে চালু ফোরজি সেবা, আপনি প্রবেশ করবেন যেভাবে

প্রকাশঃ ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৮

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

চতুর্থ প্রজন্মের ইন্টারনেট সেবা ফোরজির লাইসেন্স পেয়েছে দেশের চার মোবাইলফোন অপারেটর। লাইসেন্স পাওয়ার পরপরই দেশের চার অপারেটর ফোরজি নেটওয়ার্ক আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করে।

আজ সোমবার সন্ধ্যায় বাংলালিংক, গ্রামীণফোন, রবি ও টেলিটকের কাছে এই লাইসেন্স হস্তান্তর করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি।

শুরুতে গ্রামীণফোন ঢাকার কিছু অংশে ফোরজি চালু করে। অন্যদিকে বাংলালিংক ঢাকাসহ চট্টগ্রাম, খুলনা এবং সিলেটে একযোগে ফোরজি চালু করে। এছাড়াও রবি ঢাকায় ফোরজি নেটওয়ার্ক চালুর ঘোষণা দিয়েছে। যদিও সরকার সংস্থা টেলিটক ফোরজির লাইসেন্স পেলেও ফোরজি চালুর ঘোষণা দেয়নি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। তিনি গ্রামীণফোন, বাংলালিংক, রবি এবং টেলিটকের কাছে ফোরজির লাইসেন্স হস্তান্তর করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিটিআরসি চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ, ডাক, টেলিযোগাযোগ সচিব শ্যাম সুন্দর শিকদার উপস্থিত ছিলেন।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘আজ বাংলাদেশের জন্য একটি ঐতিহাসিক দিন। ঐতিহাসিক এ অর্থে যে আজ বাংলাদেশ ফোরজির যুগে পা রাখলো। আশা করি, টেলিকম অপারেটররা গ্রাহকদের চাহিদা মেটাবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘টেলিকম অপারেটরদের আরও সেবার মান বাড়াতে হবে। কারণ জনগণ আপনাদের সেবার জন্য পয়সা খরচ করে।’

কিন্তু আগে যারা সিম কিনেছেন, তারা যেভাবে জানবেন আপনার মোবাইল সিমটি ফোরজি নাকি আগের অবস্থায় রয়ে গেছে-

আপনার সিমটি ফোরজি কিনা, তা যাচাইয়ের জন্য মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো মেসেজ অপশন চালু করেছে। সংশ্লিষ্ট অপারেটরে এসএমএস পাঠিয়ে জেনে নেওয়া যাচ্ছে, সিমটি ফোরজি কিনা। কোনও কোনও এসএমএস-এ  ফোরজি সিম সংক্রান্ত তথ্যের পাশাপাশি ফোন সেটটিও ফোরজি সমর্থন করে কিনা, তা জানা যাবে।

এরই মধ্যে অপারেটরগুলো মোবাইলে ফোরজি সেবা পেতে আগ্রহীদের গ্রাহকসেবা কেন্দ্রে গিয়ে সিম বদলে নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছে।

মোবাইল ফোন আমদানিকারকদের সূত্রে জানা গেছে, বাজারে এখন ১০ হাজার টাকার ওপরে যেসব স্মার্টফোন পাওয়া যাচ্ছে, সেগুলো ফোরজি সমর্থন করে।

গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, মোবাইলের কিপ্যাড অথবা ডায়াল অপশনে গিয়ে *১২১*৩২৩২# লিখে ডায়াল বাটন চাপলে ফিরতি মেসেজে জানা যাবে, আপনার সিমটি ফোরজি কিনা। কর্তৃপক্ষ আরও জানিয়েছে, যারা সিম বদল করেত চান— তারা ১১০ টাকার বিনিময়ে ফোরজি সিম নিতে পারবেন। তবে ‘জিপি স্টার’ গ্রাহকরা বিনা খরচে সিম বদলে নিতে পারবেন।

বাংলালিংক কর্তৃপক্ষ জানায়, বাংলালিংকের সিম বদলে নিতে গ্রাহককে কোনও খরচ দিতে হবে না। বিনামূল্যে অপারেটরটি গ্রাহকদের সিম বদলে ফোরজি সিম দিচ্ছে। কর্তৃপক্ষ আরও জানিয়েছে, গ্রাহকরা মেসেজ অপশনে গিয়ে ফোরজি লিখে ৫০০০ নম্বরে এসএমএস পাঠালে ফিরতি মেসেজে জানিয়ে দেওয়া হবে, সিমটি ফোরজি কিনা।

রবি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে,  গ্রাহক তার মোবাইলের কিপ্যাড অথবা ডায়াল অপশনে গিয়ে *১২৩*৪৪# লিখে ডায়াল বাটন চাপলে ফিরতি এসএমএস-এ জানিয়ে দেওয়া হয়, সিম ও সেটটি ফোরজি কিনা। এয়ারটেল গ্রাহকরাও একইভাবে জানতে পারবেন সিম ও সেটের তথ্য। তবে সিম বদলে ফোরজি সিম নিতে গ্রাহকের খরচ হবে ১০০ টাকা। রবি কর্তৃপক্ষ আরও জানিয়েছে, গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাস থেকে অপারেটরটি বাজারে রবি সিম ছেড়েছে। এসময়ের মধ্যে যারা সিম কিনেছেন বা বদল করেছেন, তাদের সিম ফোরজি সমর্থিত।

টেলিটক সূত্রে জানা গেছে, অপারেটরটির গ্রাহকরা যত সিম ব্যবহার করছে এবং বাজারে অবিক্রিত রয়েছে ৯০ ভাগই ফোরজি সিম। অবশ্য ১০ ভাগ গ্রাহকের সিম বিনা খরচে ,নাকি টাকা দিয়ে বদলে নিতে হবে, সে বিষয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানা গেছে।

কমেন্টস