ফেসবুকে ভাইরাসের হানা

প্রকাশঃ ফেব্রুয়ারি ৭, ২০১৮

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

আপনার কোনও বন্ধুর পাঠানো সন্দেহজনক লিঙ্কে ক্লিক করবেন না। বিশেষ করে ভিডিও বা ছবি। যদি একান্তই ইচ্ছে করে ক্লিক করতে, তাহলে ক্লিক করার আগে বন্ধুকে একটি মেসেজ করে জেনে নিন সেই লিঙ্ক সে পাঠিয়েছে কি না। সেই সঙ্গে হুট করে কোনও গেম রিকোয়েস্টেও সাড়া দেবেন না। হতেই পারে সেটা সাইবার অপরাধীদের কারসাজি।

এর মধ্যে রয়েছে উপহারের টোপ। দামী সামগ্রী জেতার সুযোগ দিয়ে এই টোপ তৈরি করা হয়। এমত নানাবিধ বিপজ্জনক ভাইরাস ঘোরাফেরা করে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টের চৌহদ্দিতে।

সুতরাং সাবধান। জেনে নিন এদের হাত থেকে রেহাই পেতে কী করবেন।

যদি বোঝেন ভাইরাসের পাল্লায় পড়েছেন, তাহলে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ফেসবুকের পাসওয়ার্ড বদলে ফেলুন। পাশাপাশি সমস্ত বন্ধুদের জানিয়ে দিন, আপনি ভাইরাসের পাল্লায় পড়েছেন। এর পর ডাউনলোড করে নিন রিইমেজ বা প্লামবাইটস অ্যান্টি-ম্যালওয়্যার। তার পর আপনার কম্পিউটার স্ক্যান করুন।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের শেষ দিকে ভাইরাসের প্রকোপ দেখা দিয়েছিল ফেসবুকে। সামান্য অসতর্কতাতেই ব্যক্তিগত তথ্য হ্যাকারদের হাতে চলে যাওয়ার আতঙ্কে পড়তে হয়েছিল ব্যবহারকারীদের। বছর ঘুরলেও এখনও সক্রিয় হ্যাকাররা। গত জানুয়ারিতেই সিঙ্গাপুরে হানা দিয়েছিল এই ভাইরাস। সেখানকার ফেসবুক ব্যবহারকারীরা পড়েছিলেন চরম বিড়ম্বনায়।

এই ম্যালওয়্যারগুলির মধ্যে সবথেকে বেশি যার নাম শোনা যায় সেটি হল ফেসবুক ভিডিও ভাইরাস। ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমেই মূলত এটি ছড়িয়ে পড়ে। এছাড়াও নানা রকম ম্যালওয়্যার রয়েছে। কখনও আপনার বন্ধু তালিকার সবাইকে স্প্যাম মেসেজ পাঠিয়ে, কখনও বা কোনও ‘ফেক’ প্রতিযোগিতার আয়োজনের মাধ্যমেও তা ছড়িয়ে পড়তে পারে।

কমেন্টস