১৯ অক্টোবর বাংলাদেশে আসছে পেপাল

প্রকাশঃ অক্টোবর ৯, ২০১৭

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

আগামী ১৯ অক্টোবর বাংলাদেশে আনুষ্ঠানিকভাবে আত্নপ্রকাশ করতে যাচ্ছে অর্থ স্থানান্তরের আন্তর্জাতিক মাধ্যম পেপাল। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অর্থ স্থানান্তরের এই অনলাইন প্ল্যাটফর্মটির বাংলাদেশ যাত্রার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রীর আইসিটিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

প্রথমদিকে সোনালী, রূপালী, সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকসহ নয়টি ব্যাংকে পেপাল সেবা পাওয়া যাবে, যা ধীরে ধীরে আরও সম্প্রসারিত হবে।

আজ সোমবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের জনযোগাযোগ কর্মকর্তা আবু নাসের।

এদিকে বেশ কিছুদিন ধরেই পেপাল কর্তৃপক্ষ বাজার যাচাইসহ নানা ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালায়। এরপর সম্ভাবনাময় বাংলাদেশের কথা ভেবে পুরোপুরি পেপাল সেবা চালুর সিদ্ধান্ত আসে।

মার্কিন কোম্পানি পেপাল হোল্ডিংস বিশ্বব্যাপী অনলাইন পেমেন্ট সিস্টেম হিসেবে কাজ করে। এটি অনলাইন অর্থ স্থানান্তর ও প্রচলিত কাগুজে পদ্ধতির পরিবর্তে ইলেকট্রনিক পদ্ধতি হিসেবে কাজ করে। বিশ্বের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ফ্রিল্যান্সারদের কাছে এটি অর্থ স্থানান্তরের অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম।

বাংলাদেশে এই সেবা চালু হলে ফ্রিল্যান্সাররা উপকৃত হবেন। মসৃণ হবে ডিজিটাল ট্রানজেকশন, বাড়বে রেমিট্যান্স আসার হার।

প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘ডিজিটাল লেনদেন, ক্যাশলেস সোসাইটির দিকে যাচ্ছি আমরা। ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের ক্ষেত্রে এ ধরনের সেবা চালু করা গুরুত্বপূর্ণ।’

বাংলাদেশে পেপাল চালু নিয়ে দুই পক্ষের আলোচনার এক পর্যায়ে এ বছরের মে মাসে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সোনালী ব্যাংক পরীক্ষামূলকভাবে পেপালের সেবা (জুম) চালু করে। তবে এতে শুরুতে বৈদেশিক রেমিট্যান্স আহরণ ও বিতরণ কার্যক্রম চালুর কথা বলা হলেও ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিংয়ের অর্থ লেনদেনের সুবিধা ছিল না। পেপাল চালু ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে আরেকটি পদক্ষেপ হিসেবে বর্ণনা করেছেন প্রতিমন্ত্রী পলক।

Advertisement

কমেন্টস