বার্সার মতো ইতিহাস গড়বে টাইগারেরা

প্রকাশঃ মার্চ ১০, ২০১৭

মেজবা মিলন।।

আগে থেকেই ঘোষণা দিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ইতিহাস গড়েছে লুই এনরিকের বার্সেলোনা। কেউ ভাবতেই পারেনি নকআউট পর্বের ইতিহাসে প্রথম লেগের চার গোলের ঘাটতি পুষিয়ে পরের রাউন্ডে উঠতে পারবে বার্সা। কিন্তু সেই সব ভাবনা ভুল প্রমাণিত করেছেন মেসি,নেইমারেরা।ঠিক বার্সার মতোই এক ইতিহাস গড়ার মুখে টাইগারেরা।

চলতি শ্রীলংকার বিপক্ষে ‘জয় বাংলা কাপ’টেস্টে স্বাগতিকদের দেওয়া ৪৫৭ রানের জয়ের লক্ষে ব্যাটিং করছে বাংলাদেশ। টেস্ট ইতিহাসে ৪৫৭ রান তো দূরের কথা ৪২০রান তাড়া করেই কেউ জিততে পারেনি।

২০০৩ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের অ্যান্টিগা টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার দেওয়া ৪১৮ রান তাড়া করে জিতেছিল ক্যারিবীয়রা। সেই টেস্টে  চতুর্থ ইনিংসে সেঞ্চুরি করেছিলেন সারওয়ান (১০৫) ও চন্দরপল (১০৪)। এ ছাড়া ক্রিকেটের বরপুত্র ব্রায়ান লারা করেন ৬০ রান।

তবে শ্রীলংকার চতুর্থ ইনিংসে ৪০০ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড নেই একটিও। লংকানদের ঘূর্ণি উইকেটে সবচেয়ে বেশি রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ডটা পাকিস্তানের। ২০১৫ সালে পালেকেল্লেতে ৩৮২ রান তাড়া করে পাকিস্তান।

চতুর্থ ইনিংসে ব্যাট করার ক্ষেত্রে পৃথিবীর সবচেয়ে খারাপ ভেন্যুগুলোর অন্যতম এই গল। চতুর্থ ইনিংসে এখানে ৩০০ রান হয়েছে মাত্র একবার। ২০১২ সালে ৫১০ রান তাড়া করতে গিয়ে পাকিস্তান করে ৩০০ রান।

এই মাঠে সর্বোচ্চ তাড়া করে জয়ের ক্ষেত্রে রেকর্ডটা মাত্র ৯৯ রানের। ২০১৫ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩ উইকেট হারিয়ে ৯৯ রান করে শ্রীলংকা।

সেই ২০০৩ সালের চন্দরপলদের চিন্তার ভাজ যেন দেখা দিয়েছে তামিমদের কপালে।জয়ের জন্য বড় কিছু করতে হবে যা করেছিলেন চন্দরপলরা।হতো ক্যারিবিয়ানদের মতো হতেও পারে আবার নাও পারে। তবে তামিম-সাকিবদের অনেক দায়িত্ব নিয়ে খেলতে হবে করতে হবে সেঞ্চুরি সহ অর্ধশত।

বর্তমানে টাইগারেরা একটি শক্তিশালী দল। যার প্রমাণ তারা দিয়েছে। তামিম, সাকিব, মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহর মতো ব্যাটসম্যান রয়েছে যাদের রয়েছে সেঞ্চুরি করার মতো পূর্ব অভিজ্ঞতা।

গলে যখন এমনি এক টেস্ট ইতিহাসের মুখোমুখি টাইগারেরা সামনে পাহাড় সমান রান।অনেকেই হয়তো ভাবছেন এমন ম্যাচ জেতার তো কোনো প্রশ্নই আসে না; প্রশ্ন হলো ম্যাচটি কি আদৌ ড্র করতে পারবে ।এখন টাইগারা কি করবে? সেটাই দেখার বিষয়। ম্যাচ ড্র করবে?না বার্সেলোনার মত  ইতিহাস গড়বে ?

 

Advertisement

কমেন্টস