‘লাভ নিবেন, দায় নিবেন না তা হবে না’ বাস মালিককে আদালত

প্রকাশঃ মে ১৭, ২০১৮

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

‘বেনিফিট (লাভ) নিবেন, দায় নিবেন না তা হবে না’ রাজধানীর স্বজন পরিবহনের মালিকের উদ্দেশ্যে এমন মন্তব্য করেছে আপিল বিভাগের একটি বেঞ্চ।

বৃহস্পতিবার (১৭ মে) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চে রাজীবের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ মামলার শুনানিকালে এমন মন্তব্য করে আদালত।

বিআরটিসির পক্ষের আইনজীবী এ বি এম বায়েজিদ আদালতে বলেন,  ওই দুর্ঘটনার জন্য বিআরটিসি দায়ী না। স্বজন পরিবহনের ওই গাড়িটি ওই দিন বাম দিক থেকে ওভারটেক করে এসে বিআরটিসি’র গাড়িটিকে ধাক্কা দেয়।

তিনি বলেন, ‘এতে আমাদের দোষের কিছু নেই, আমরা দাঁড়িয়ে ছিলাম। এজন্য আমরা দায়ী না হলে ক্ষতিপূরণের টাকা কেন দেব?’

উত্তরে আদালত স্বজন পরিবহনের বাস মালিকের আইনজীবীর উদ্দেশে বলেন, ‘বেনিফিট নিবেন, দুর্ঘটনায় জরিমানা দিবেন না তা হবে না।’

সে সময় স্বজন পরিবহনের পক্ষের আইনজীবী পংকজ কুমার কুণ্ড আদালতকে বলেন, ‘ওই দিনের ঘটনায় স্বজন পরিবহন নামে যে গাড়িটি ছিল, সেটি স্বজন পরিবহন কোম্পানির গাড়ি না। ওই গাড়িটি এ কোম্পানীকে মাসে ছয় হাজার টাকা দিত। এ কারণে গাড়িটি স্বজন নামে দিয়ে চলত। আসাদুজ্জামান রাজু নামের একজন ওই গাড়ির মালিক।’

আদালতে রাজীবের পরিবারের পক্ষের আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস কাজল বলেন, ‘আমি আদালতে বলেছি, রাজীবের পরিবারকে ক্ষতিপুরণ দিতে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করা যাবে না। প্রয়োজনে ক্ষতিপুরণের টাকা ব্যাংকে গচ্ছিত রাখা হোক। হাইকোর্টের আদেশের পর রাস্তায় চলাচলকারী যাত্রীবাহী বাসগুলো অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে চলাচলের চেষ্টা করছে।’

পরে এ মামলার শুনানি শেষে এ বিষয়ে আদেশের জন্য আগামী ২১ মে সোমবার দিন ধার্য করে আপিল বিভাগ।

৩ এপ্রিল দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারের সার্ক ফোয়ারা মোড়ে দুই বাসের প্রতিযোগিতায় হাত হারান সরকারি তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজীব হোসেন। এ ছাড়া মাথায় ও মস্তিষ্কে গুরুতর আঘাত পান। পরে আহত রাজীবকে দ্রুত শমরিতা হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে নেওয়া হয় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

দুর্ঘটনার পরদিন বুধবার ৪ এপ্রিল হাইকোর্টে রাজীবের জন্য ক্ষতিপূরণ চেয়ে একটি আবেদন করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস কাজল। সেই আবেদনের শুনানি করে ১ কোটি টাকা কেন ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করে হাইকোর্ট। একইসঙ্গে রাজীবের চিকিৎসার সমস্ত ব্যয় বহনের জন্য বিআরটিসি কর্তৃপক্ষ ও স্বজন পরিবহনের মালিককে নির্দেশ দেয় আদালত।

চার সপ্তাহের মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, সড়ক পরিবহন সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজি), ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার, বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশনের (বিআরটিসি) চেয়ারম্যান, স্বজন পরিবহনের মালিকসহ আটজনকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

৮ মে রাজীবের দুই ভাইকে এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ বিআরটিসি ও স্বজন পরিবহনের মালিককে নির্দেশ দেন  বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ। এরপর এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে আবেদন করে বিআরটিসি।

কমেন্টস