তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ে প্রশিক্ষণের আওতায় আসছে আরো ৩০ হাজার নারী

প্রকাশঃ মার্চ ১৭, ২০১৭

মোহাম্মদ রানা-

২০১৮ সালের মধ্যে আরো ৩০ হাজার নারীকে তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেবে সরকার। উইমেন অ্যান্ড আইসিটি ফ্রন্টিয়ার ইনিশিয়েটিভ উদ্যোগে তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

বুধবার বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল মিলনায়তনে নারী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত উইমেন অ্যান্ড আইসিটি ফ্রন্টিয়ার ইনিশিয়েটিভ (ওয়াইফাই) এর প্রি-লঞ্চিং অনুষ্ঠানে  তিনি এ কথা জানান।

তিনি বলেন, আমি অত্যন্ত আশাবাদী যে, এই ওয়াইফাই উদ্যোগের মাধ্যমে আগামী ২০১৮ সালের মধ্যে আরও ৩০ হাজারের বেশি নারী উদ্যোক্তা গড়ে তুলতে পারব। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, এই উদ্যোগ নারী উদ্যোক্তাদের জীবন, পরিবার এবং সমাজ পরিবর্তনে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ইউনিয়ন পর্যায়ে ২০ হাজার নারীকে ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। উপজেলা ও জেলায় ‘অ্যাডভান্স লেভেলের’ প্রশিক্ষণের উদ্যেগে নেওয়া হয়েছে।

এছাড়া ভ্রাম্যমাণ প্রশিক্ষণ বাসের মাধ্যমে নারীদের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। এর মাধ্যমে আগামী তিন বছরে দুই লাখ ৬০ হাজার নারীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।

বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক স্বপন কুমার সরকারের সভাপতিত্বে অস্ট্রেলিয়ান হাই কমিশনার জুলিয়া নিবলেট, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব সুবির কিশোর চৌধুরী, এশিয়া ফাউন্ডেশনের ডেপুটি কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ সারা টেইলর, ইউএনডিপির জেন্ডার অ্যান্ড পার্টনারশিপ স্পেশালিস্ট মেলিসা বালজান অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

নারীদের উদ্যোক্তা হতে উৎসাহিত করতে এবং তাদের জন্য সুযোগ তৈরি করতে গত ডিসেম্বরে ওয়াইফাই উদ্যেগের সূচনা হয়।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, বাংলাদেশ উইমেন ইন টেকনোলজি (বিডব্লিউআইটি), বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অফ আইসিটি ইন ডেভেলপমেন্ট (বিআইআইডি) এই উদ্যোগে একসঙ্গে কাজ করছে।

উইমেন অ্যান্ড আইসিটি ফ্রন্টিয়ার ইনিশিয়েটিভের মাধ্যমে এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে আইসিটি ও উদ্যোক্তা হওয়ার ক্ষেত্রে নারীদের সুযোগ তৈরি করা হচ্ছে।

কমেন্টস