‘আমাদের কোনো কথা না শুনেই জামিন স্থগিত করা হয়েছে’

প্রকাশঃ মার্চ ১৪, ২০১৮

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

‘আপিল বিভাগ আমাদের কোনো কথা না শুনেই জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন রবিবার পর্যন্ত স্থগিত করেছেন’ , বলেছেন আইনজীবী জয়নুল আবেদীন।

বুধবার সকালে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদকের করা সময়ের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিত করা হয়। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদেশের পর সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেন, আদালতে এ আদেশে আমরা মর্মাহত ও ব্যথিত। অতীতে এ ধরনের কোনো আদেশ দেয়া হয়নি।

তিনি বলেন, এ আদেশের ফলে সারা দেশের মানুষের আদালত সম্পর্কে বিরূপ ধারণার সৃষ্টি হবে। আপিল বিভাগ আমাদের কোনো কথা না শুনেই দুদকের করা সময়ের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে খালেদা জিয়াকে দেয়া চার মাসের জামিন রোববার পর্যন্ত স্থগিত করেছেন। আমরা বারবার আদালতকে অনুরোধ করেছি, তার পরও আদালত আমাদের কথা শোনেননি।

সোমবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় হাইকোর্ট খালেদা জিয়াকে চার মাসের জামিন মঞ্জুর করেন। এর পর মঙ্গলবার এ জামিন আদেশ স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্র ও দুদক চেম্বার জজ আদালতে পৃথক দুটি আবেদন করেন।

শুনানি শেষে চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী কোনো আদেশ না দিয়ে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন। গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াসহ ছয় আসামিকে দোষী সাব্যস্ত করে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ রায় দেন।

আদালত খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। রায়ের দিন থেকে নাজিমউদ্দিন রোডের পুরাতন কারাগারে বন্দি রয়েছেন বিএনপি নেত্রী।

কমেন্টস