খালেদার সামনে তারেকপত্নীকে রাজনীতিতে সক্রিয় হওয়ার আহ্বান, নাকচ করে দিলেন জুবায়দা

প্রকাশঃ আগস্ট ১, ২০১৭

Advertisement

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

দলের ভিতরে চলমান নানা আলোচনা-সমালোচনার অবসান ঘটিয়ে আপাতত রাজনীতিতে সক্রিয় হচ্ছেন না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পুত্রবধূ ও দলটির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের স্ত্রী জুবায়দা রহমান।

বর্তমানে লন্ডন সফরে রয়েছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। সেখানে তারেকপত্নী’র রাজনীতিতে আসার বিষয়টি উত্থাপনের চেষ্টা করেন কয়েকজন নেতা। কিন্তু সে সুযোগই দেননি জুবায়দা রহমান। বেগম খালেদা জিয়ার কার্যালয় ঘনিষ্ঠ একাধিক নেতা দেশে ও লন্ডনে জুবায়দা রহমানকে সক্রিয় করার এসব উদ্যোগ নেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রাজনীতিতে সক্রিয় হওয়ার আহ্বানের পর জুবায়দা রহমান স্পষ্ট জানান, তিনি পুরোদস্তুর একজন একাডেমিক লোক। পড়াশোনা, গবেষণা ও চিকিৎসা সেবাতেই তার আগ্রহ বেশি। এ মুহূর্তে তিনি রাজনীতিতে আগ্রহী নন। তবে সময় যদি কখনো টেনে নিয়ে যায় তা ভিন্ন বিষয়।

ইতোমধ্যে দুই দুইবার তার কাছে দলের দায়িত্বশীলদের পক্ষ থেকে নিয়ে যাওয়া রাজনীতিতে সক্রিয় হওয়ার প্রস্তাবও তিনি ফিরিয়ে দিয়েছেন। এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন বিএনপির একাধিক দায়িত্বশীল নেতা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিএনপির স্থায়ী কমিটির একজন সদস্য জানান, গত রমজানে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টাসহ বেশ কয়েকজন নেতা লন্ডনে জুবায়দা রহমানকে প্রথম রাজনীতিতে সরাসরি সক্রিয় হওয়ার আহ্বান জানান। তারা যুক্তি হিসেবে দেখান, যেহেতু তারেক রহমান এখন দেশে ফিরতে পারছেন না এবং বেগম খালেদা জিয়ার বয়স বেড়েছে তাই আগামী নির্বাচন সামনে রেখে জিয়া পরিবারের কাউকে মাঠে সরব হওয়া জরুরি।

দলটির নেতারা বলেন, বিএনপির তৃণমূলে ইতোমধ্যে জুবায়দা রহমানের একটি গ্রহণযোগ্যতা ও জনপ্রিয়তার ইমেজ তৈরি হয়েছে। বিশেষ করে ১/১১ এর সময় পর্দার সামনে না আসলেও ধৈর্যের সঙ্গে পরামর্শ দিয়ে জিয়া পরিবারের সদস্য হিসেবে জুবায়দা রহমান বিএনপির থিংক ট্যাংকে সমাদৃত হয়েছিলেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জুবায়দা রহমানকে দলে সক্রিয় করার চলমান উদ্যোগের কথা স্বীকার করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার। তিনি বলেন, ‘অবশ্যই তার (জুবায়দা রহমানের) তৃণমূলে খুব ভাল ইমেজ রয়েছে। কিন্তু ডিফিকাল্ট হলো, উনি দেশে ফেরার আগে কিছু করার নেই। এখানেই আটকে আছে। দেশে ফেরার আগে দলে পদ দিলেও প্রশ্ন উঠবে।’

জমির উদ্দিন সরকার আরও জানান, বেগম খালেদা জিয়া লন্ডন থেকে ফিরে দলের স্থায়ী কমিটির শূন্য পদগুলো পূরণ করবেন। কিন্তু এটাও সত্য যে, স্থায়ী কমিটিতে জায়গা দেওয়ার মতো যোগ্য লোক পাওয়া যাচ্ছে না।

গত বছর ১৯ সদস্যের বিএনপির নতুন জাতীয় স্থায়ী কমিটির নাম ঘোষণা করেছিলেন বেগম খালেদা জিয়া। সেখানে দুটি পদ খালি রাখা হয়েছিল। তখন থেকেই আলোচনায় ছিল তারেক ও আরাফাত রহমানের স্ত্রীদের দলে সক্রিয় করতে ওই দুটি পদ খালি রাখা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির অপর সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘জুবায়দা রহমানকে রাজনীতিতে আনার বিষয়ে বেগম খালেদা জিয়া তাদের সঙ্গে কোনো আলোচনা এখনও করেননি।’

Advertisement

Advertisement

কমেন্টস