ভোলায় প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানে এসএসসি উর্ত্তীণ শিক্ষার্থীকে এসিড নিক্ষেপ, বিচার চেয়ে মানববন্ধন

প্রকাশঃ মে ১৭, ২০১৮

এম. শরীফ হোসাইন, ভোলা প্রতিনিধি॥

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় এসিড দিয়ে ঝলসে দেওয়া হলো সহোদর দুই বোনকে। ঘটনাটি ঘটেছে ভোলার উত্তর দিঘলদী ইউনিয়নের গজারিয়াবাজার রাঢ়ি বাড়িতে। এসিড-সন্ত্রাসের শিকার এই দুই বোনের হামলাকারীদের বিচারের দাবিতে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়েছে।মানববন্ধনটির আয়োজন করেছেন ভোলা প্রথম আলো বন্ধুসভা।

মনববন্ধনে একাত্মতা প্রকাশ করে স্বেচ্ছায় রক্তদান সংগঠন “বলাকা”, ভোলার অন্যতম স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন “হেল্প এন্ড কেয়ার” এবং ভোলার জার্নালিস্ট ফোরামসহ আরো কয়েকটি সংগঠন। ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের দ্রুত গ্রেফতার ও উপযুক্ত বিচারের দাবি করেন আয়োজকরা। এ জন্যে সুষ্ঠু তদন্তে প্রশাসনের সহযোগীতার আহ্বানও জানানো হয়।

বক্তারা জোর দিয়ে বলেন, সারাদের মানুষের কাছে ভোলা শান্তিপূর্ণ এলাকা হিসেবে পরিচিত। কিন্তু আজ আইনশৃঙ্খলা ও প্রশাসনের গাফলতির কারণে ভোলার অবস্থা দিনকে দিন খারাপের দিকে যাচ্ছে। ভোলার মানুষ রাতে ঘুমাতেও এখন ভয় পায়। অল্প কয়েকদিনের মধ্যে এ জেলায় কয়েকটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা মানুষের মনে আতঙ্কের মাত্রা আরো বাড়িয়ে দিল। আর এসকল ঘটনা বৃদ্ধির জন্য প্রশাসনই দায়ী।

ভোলা চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম, এনটিভি প্রতিনিধি আফজাল হোসাইন, আরটিভি ও যুগান্তর প্রতিনিধি অভিতাভ অপু, কোস্ট ট্রাস্টের ইকোফিশ প্রকল্পের সমন্বয়কারী মো: জহিরুল ইসলামসহ প্রমূখ এ মানববন্ধনে  বক্তব্য রাখেন।

এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন কোস্ট ট্রাস্টের ইকোফিশ প্রকল্পের সহ-সমন্বয়কারী সোহেল মাহমুদ, অ্যাডভোকেট ও সাংবাদিক মনিরুল ইসলাম, ভোলা প্রথম আলো বন্ধুসভা উপদেষ্টা ও প্রথম আলো প্রতিনিধি নেয়ামত উল্যাহ, ভোলা প্রথম আলো বন্ধুসভা উপদেষ্টা এস এম বাহাউদ্দিন, অনলাইন সাংবাদিক সংস্থার সাধারন সম্পাদক এডভোকেট মনিরুল ইসলাম, ভোলা প্রথম আলো বন্ধুসভার উপদেষ্টা মো. ইকরামুল, জীবন পূরাণ আবৃতি একাডেমির পরিচালক মশিউর রহমান পিংকু, বলাকা’র জেলা সভাপতি মাহামুদুল হাসান ফাহাদ, ভোলা জার্নালিষ্ট ফোরামের সভাপতি এডভোকেট শাহিন কাদের, সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়ামিন হোসেন, ভোলা প্রথম আলো বন্ধুসভা সভাপতি মামুনুর রশীদ, সাধারণ সম্পাদক মো. রাজিব, সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান (মিশু), সাংগঠনিক সম্পাদক এম শরীফ আহমেদসহ অনলাইন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক, বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা।

উল্লেখ্য যে, প্রেম প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় এক তরুণের ছোড়া এসিডে দুই বোনের শরীর ঝলসে গেছে। বড় বোন তানজিম আক্তার মালার মুখমন্ডল, দুই চোখসহ শরীরের বিভিন্ন স্থান ঝলসে যায়। আর ছোট বোন মারজিয়ার হাত ও পেটসহ বিভিন্ন স্থান ঝলসে গেছে। আহদের উদ্ধার করতে গিয়ে মা জান্নাত বেগমের হাতেও এসিড লেগে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় দগ্ধ হন। মালা স্থানীয় আব্দুল মান্নান মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ‘এ’ গ্রেডে এসএসসি পাস করেছে। আর মার্জিয়ার বয়স আট বছর। সে দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত রাজিবের বাবা ফারুক রাঢ়ি ও চাচা মো. ইউছুফকে আটক করলেও অভিযুক্ত মূল আসামীকে এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

কমেন্টস