বিশ্বের অন্য দেশগুলোতে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বসয় কেমন?

প্রকাশঃ এপ্রিল ১৬, ২০১৮

ফাইল ছবি

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

বেশ  কিছু দিন ধরে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩০ বছর থেকে বাড়িয়ে ৩৫ বছর করার দাবিতে আন্দোলন করছে চাকরিপ্রার্থীরা।

তারাই ধারাবাহিকতায় সোমবার রাজধানীর শাহবাগ থেকে শুরু করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা দিয়ে প্রেসক্লাব হয়ে আবার শাহাবাগ পর্যন্ত রিকশা ও ঠেলাগাড়ি শোভাযাত্রা করে এই দাবি তুলে ধরে আন্দোলনকারীরা।

এসময় আন্দোলনকারীরা বলেন, পার্শ্ববর্তী দেশসহ উন্নত দেশে চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাংলাদেশের তুলনায় অনেক বেশি। কোনো কোনো দেশে অবসরের আগের দিন পর্যন্ত চাকরিতে প্রবেশের সুযোগ রাখা হয়েছে।

কর্মসূচিতে জানানো হয়, ভারতের পশ্চিমবঙ্গে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৪০। শ্রীলংকায় এটি ৪৫, ইন্দোনেশিয়ায় ৩৫, ইতালিতে ৩৫, কোনো কোনো ক্ষেত্রে ৩৮, ফ্রান্সে ৪০। অন্যদিকে ফিলিপাইন, তুরস্ক ও সুইডেনে অবসরের আগের দিন পর্যন্ত চাকরিতে যোগ দেয়া যায়।

আন্দোলকারীরা এও বলছেন, আফ্রিকায় চাকরি প্রার্থীদের বয়স বাংলাদেশের সরকারি চাকরির মতো সীমাবদ্ধ নেই। অর্থাৎ চাকরি প্রার্থীদের বয়স ২১ হলে এবং প্রয়োজনীয় শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকলে যে কোনো বয়সে আবেদন করা যায়।

রাশিয়া, হংকং, দক্ষিণ কোরিয়া, যুক্তরাজ্যে যোগ্যতা থাকলে অবসরের আগের দিনও যে কেউ সরকারি চাকরিতে প্রবেশ করতে পারেন বলে জানানো হয়। যুক্তরাষ্ট্রে ফেডারেল গভর্নমেন্ট ও স্টেট গভর্নমেন্ট উভয় ক্ষেত্রে চাকরিতে প্রবেশের বয়স কমপক্ষে ২০ বছর এবং সর্বোচ্চ ৫৯ বছর।

কানাডার ফেডারেল পাবলিক সার্ভিসের ক্ষেত্রে কমপক্ষে ২০ বছর হতে হবে, তবে ৬৫ বছরের ঊর্ধ্বে নয় এবং সিভিল সার্ভিসে সর্বনিম্ন ২০ বছর এবং সর্বোচ্চ ৬০ বছর পর্যন্ত সরকারি চাকরির জন্য আবেদন করা যায়।

কমেন্টস