পরীক্ষায় ফেলের ভয় দেখিয়ে ছাত্রদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক অতঃপর…

প্রকাশঃ নভেম্বর ১৮, ২০১৭

বিডিমর্নিং ডেস্ক:

পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে নাবালক ছাত্রদের সঙ্গে জোর করে শারীরিক সম্পর্কে বাধ্য করার অপরাধে এক স্কুল শিক্ষিকাকে আদালতে দোষী সাব্যস্ত করে ৪০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে কলম্বিয়ায়।

ইয়োকাস্তা এম নামে বছর চল্লিশের এই শিক্ষিকা অপেক্ষাকৃত উঁচু ক্লাসের ছাত্রদের ফেল করিয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে তাদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক তৈরি করতেন। ২০১৬ এর জানুয়ারি থেকে এপ্রিল মাস পর্যন্ত এমনভাবে বহু ছাত্রের সঙ্গে তিনি শারীরিক সম্পর্ক তৈরি করেন। খারাপ নম্বরের ভয়ে ছাত্ররাও মুখ খুলত না।

প্রথমে ছাত্রদের সোশ্যাল মিডিয়ায় তাদের মোবাইল নম্বর চাইতেন ওই শিক্ষিকা। তার পর হোয়াটস অ্যাপে নিজের নগ্ন-অর্ধনগ্ন ছবি পাঠাতেন। ফোন করে ভয় দেখাতেন, যদি এ ব্যাপারে কারও কাছে মুখ খোলে তবে পরীক্ষার ফল খারাপ হবে। এমনকী ফেল করিয়ে দেবেন তিনি।

এ ভাবেই চলছিল সব। এক দিন এমনই এক ছাত্রের বাবার হাতে ছেলের মোবাইল পড়ে। সেখানে ওই শিক্ষিকার মেসেজ এবং ছবি দেখে ছেলেকে জেরা শুরু করেন তিনি। তখন চাপের মুখে ছাত্রটি সব স্বীকার করে।

ছেলেটি জানায়, তার মতো আরও অনেক ছাত্রের সঙ্গে শিক্ষিকার শারীরিক সম্পর্ক রয়েছে। ফেল করিয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে তিনি এ সবে বাধ্য করাতেন। পরে অভিভাবকদের মিলিত অভিযোগের ভিত্তিতে ওই শিক্ষিকাকে গ্রেফতার করা হয়।

শিক্ষিকার স্বামীও সব জানতে পারেন এবং বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা রুজু করেন। গত এক বছর ধরে মামলা চলার পর আদালতে দোষী সাব্যস্ত হন ইয়োকাস্তা। তাঁকে ৪০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

কমেন্টস