পৃথিবীতে আছে ‘সু ট্রি’ নামের অদ্ভুত জুতার গাছ!

প্রকাশঃ এপ্রিল ২৩, ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

আপনি ফুল, ফল এবং সবজি গাছ তো দেখেই থাকেন। কিন্তু কখনও জুতা-গাছ দেখেছেন কি? অবিশ্বাস্য মনে হলেও সত্যি! পৃথিবীতে এমন জায়গা রয়েছে, যেখানে সহজেই জুতার গাছের দেখা মিলতে পারে। আমরা কথা বলছি ‘সু ট্রি’র। সাধারণতভাবে, একে কালস্কা ‘সু ট্রি’ বলে ডাকা হয়। এমন জুতার গাছের দেখা মিলবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পশ্চিম মিশিগানে। জনশ্রুতি, এখান থেকেই জুতার গাছের ‘চাষ’ শুরু হয়।

তবে, মিশিগান একমাত্র নয়। এ ধরনের জুতা-গাছ বিশ্বের আরও ১০০টি জায়গায় দেখা মেলে। এই সু ট্রি’র নেপথ্য গল্প কারও জানা নেই। মানুষ স্রেফ এর প্রসঙ্গে আন্দাজ লাগাতে পারে।

বহু মানুষের দাবি, ১৯৯৫ সাল এই সু ট্রি’র দেখা মিলতে শুরু করেছে। তবে, এই গাছ কবে রয়েছে, তা কারও জানা নেই। ২০০৫ সালে নর্দার্ন এক্সপ্রেসে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, এই জুতা-গাছকে অনেকেই ‘দ্য গ্রেট লিটসভিলে ‘সু ট্রি’ নামে ডাকা থাকে। অনেকেই মানেন, এই গাছের উপস্থিতির আসল কারণ হল– এমন কিছু ঘটনা বা বিষয় হচ্ছে, যা আগে কখনও হয়নি।

অনেকের দাবি, মিশিগানে এই গাছের শুরু করে এক সিরিয়াল কিলার। তাদের দাবি, ওই সিরিয়াল কিলার কতজনকে হত্যা করেছে, তার প্রমাণস্বরূপ, প্রত্যেকের জুতা ওই গাছে টাঙিয়ে দিত। আবার কয়েকজনের দাবি, চলে যাওয়ার আগে, স্মৃতি হিসেবে নিজের এক পাটি জুতা সকলে গাছে টাঙিয়ে রাখেন। স্নিকার্স শুরু করে স্লিপার্স, স্যান্ডাল, আইস বুটস– বিভিন্ন ধরনের জুতা এই গাছে দেখতে পাওয়া যায়।

উত্তর আমেরিকার মানুষজন অতিরিক্ত জুতা-জোড়া এই গাছে টাঙিয়ে দেন, যাতে যাদের প্রয়োজন, তারা পরতে পারেন। এমনও জনশ্রুতি যে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়, সৈনিকরা নিজেদের জুতা এই আশায় গাছে বেঁধে দেন যে, লড়াই থামলে তারা জীবিত ফিরে এই জুতা নেবেন।

এ ধরনের সু-ট্রি হাওয়াই, অস্ট্রেলিয়া, জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, সাউথ আফ্রিকা এবং ইউনাইটেড কিংডমে দেখা যায়। ইউরোপ ও আমেরিকায় জুতাকে গাছে টাঙানোর সাথে সন্তান ধারণের তত্ত্ব দীর্ঘদিন ধরে চলে আসছে। মানুষ না, এর আসল কারণ কী। কিন্তু, অনেকে মনে করেন, যৌনজীবন সঠিক না হলেও অনেকে জুতা গাছে টাঙিয়ে রাখেন।

কমেন্টস