বারবি ডল হবার আশায় পাঁজর কেটে স্বপ্নপূরণ করলেন এই যুবতী

প্রকাশঃ সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৭

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

চাই লাস্যময়ী কার্টুন চরিত্রের মতো চমকদার শরীর। পাঁজর থেকে স্বেচ্ছায় তাই ৬টি হাড় সরিয়ে ফেলেছেন আমেরিকা প্রবাসী ব্রিটিশ যুবতী। জেসিকা র‌্যাবিট সাজতে গিয়ে পাল্টে ফেলেছেন খাদ্যাভ্যাস, জীবনযাপন।

পিক্সি ফক্স নামের এই নারী নিজেকে আরো আকর্ষণীয় করার লোভে মানবীয় আকার ছেড়ে একেবারে কার্টুন আকৃতির শরীর নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। সম্প্রতি কসমেটিক সার্জারি মাধ্যমে পাঁজরের ছয়টি হাড় অপসারণ করিয়েছেন। ৫০০,০০০ পাউন্ডেরও বেশি অর্থ ব্যয় করে বারবি ডলের মতো ফিগার তৈরিতে বেশ কয়েকটি ভয়ঙ্কর সার্জারি করিয়েছেন তিনি। পিক্সি ফক্সের কমরের মাপ মাত্র ১৫ ইঞ্চি।

এখানেই শেষ নয় আরেকটি খুবই বিপদজনক সার্জারির মাধ্যমে চোখের রঙও পরিবর্তন করিয়েছেন। ইউরোপ এবং আমেরিকার কোথাও তিনি তার চোখের রঙ পরিবর্তন করাতে পারেনি। তাই তিনি শেষ পর্যন্ত ভারতে এসে সার্জারির মাধ্যমে চোখকে অপূর্ব সুন্দর রঙে রাঙিয়ে নেন। নিজের বক্ষের আকৃতি বাড়িয়ে আরো বেশি আকর্ষণীয় মাপে দাঁড় করিয়েছেন, তিনি এখন সবচেয়ে চিকন কোমোরের অধিকারী নারী।

শরীরে এই অতিমাত্রা পরিবর্তন লাভের আসায় তিনি কোরিয়াতে গিয়েও সার্জারি করিয়েছেন। এই সব সার্জারিতে ভুলক্রমে যদি কনো নিখুঁত ভুল হয়ে যেত তাহলে হয়ত পিক্সি একেবারে অবস হয়ে জেতেন।

এতসব ঝুঁকিপূর্ণ বিষয় মাথায় রেখেই তিনি এই সব বিপজ্জনক সার্জারিতে অংশগ্রহণ করেছেন। পিক্সি ফক্সের ইচ্ছা তিনি পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দরী নারী হবেন। আর তাই কোনভাবেই নিজেকে আকর্ষণীয় করার লোভ থেকে পিছিয়ে আনতে পারেননি। তাই আসক্তির মত একের পর এক প্লাস্টিক সার্জারি করিয়েছেন।

নিজের ব্লগে পিজি ফক্স জানান, ‘আমি নিজেকে মানুষ থেকে জীবন্ত কার্টুনে রূপান্তরিত করছি।’

দেহে একাধিক সার্জারির কারণে ইদানীং ভারী খাদ্য হজম করতে পারেন না পিক্সি। খাদ্যতালিকা থেকে বাদ গিয়েছে রুটি, মাংস। বদলে নানা রকম বাদাম, সবজি আর ফল ঠাঁই পেয়েছে খোরাকিতে। সবকিছু মিক্সারে ঘুঁটে নিয়ে সারাদিন নিয়ন্ত্রিত পরিমাণে খেতে পারেন তিনি। তবে এতে কোনও আফশোস নেই তাঁর।

পিক্সি স্বীকার করেছেন, ‘আমার চাই সরু কোমর, ভারী নিতম্ব ও সুবিশাল স্তনজোড়া। এর সঙ্গে সুন্দর একটি মুখ আমার স্বপ্ন সার্থক করেছে।’

Advertisement

কমেন্টস