‘মাদার অফ জেনোসাইড’

প্রকাশঃ জানুয়ারি ১৫, ২০১৮

‘মাদার অফ জেনোসাইড’
মুহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

……………………………………..

চারিদিকে শুধুই হাহাকার!
সীমান্তের ওপার থেকে এপার
নাফ নদী হয়ে ক্রমাগত ভেসে আসে;
আবাল-বৃদ্ধ-বনিতা আর অগণিত লাশ।
সীমান্তের ওপার থেকে এপার
ভেসে আসে দুঃসহ মরণ সংবাদ;
গগনে-পবনে অকিঞ্চন হাহাকার।
সীমান্তের ওপার থেকে এপার
শুনা যায় ভয়াল গোলা-বারুদের ঝনঝনানী;
নিষ্ফলক চেয়ে দেখি প্রোজ্জ্বল-পাবক-ফুলকি।

শান্তি দেবীর ভাড়াটে নিসুদক বাহিনী,
কেড়ে নিয়েছে অপ্রমেয় সহস্র প্রাণ।
বৌদ্ধ বনিতার বন্ধাত্বের মেকি অজুহাতে,
মুসলিম অনূঢ়ার বিমল সতীত্বনাশে;
মেতে উঠেছে কামুক প্রৌঢ়েরা অবিরাম।
বর্মী পিশাচের বিষম বন্দুকের নল,
জঘণ্য গণহত্যার একেছে নীল নকশা;
বিলীন করেছে কতশত তাজা নব অস্তিত্ব।

ব্রহ্মদেশে তাণ্ডবলীলা চালিয়েই হয়নি শুধু ক্ষান্ত,
নিকুঞ্জ জালিয়ে রোহিঙ্গাদের দেশত্যাগে করেছে বাধ্য।
মানবতা আজ কোথায়? বিশ্ব বিবেক কেনো সুপ্ত?

বুদ্ধের বাণী-‘জীব হত্যা মহাপাপ’।
তবে কার তুষ্টিতে নির্দেশ রোহিঙ্গা মার!
‘পৃথিবীর সকল প্রাণী সুখী হোক’-বুদ্ধের দর্শন।
খুন-ধর্ষণ-লুন্ঠন এসব কি বিশ্ব শান্তির লক্ষণ!
বুদ্ধের বাণী-‘অহিংসা পরম ধর্ম’।
চলছে কেনো তবে রহিঙ্গা নিধনযঙ্গ!

সুচির দেশ রোহিঙ্গাদের করেনি গ্রহণ,
যমদূতই কেবল তাদের করেছে বরণ।
বলিষ্ট কন্ঠে করছি দাবি-
ফিরিয়ে নিতে সুচির নোবেল প্রাইজ।
জোরহাতে মোদের আকুতি-
ঘোষণা দিতে তাকে মাদার অফ জেনোসাইড।

কমেন্টস