মুহূর্তে প্রেমে পড়বে যেসব কথাবার্তায়

প্রকাশঃ জুলাই ১১, ২০১৬

বিডিমর্নিং ডেস্ক – 

আমেরিকার স্টেট ইউনিভার্সিটি অব নিউ ইয়র্ক এর এক মনোবিজ্ঞানী আর্থার অ্যারোন ১৯৯৭ সালে প্রেমের অনুভূতি নিয়ে গবেষণা করেন। দেখা যায়, দুটো মানুষ হঠাৎ করেই একে অপরের প্রতি খুব বেশি মনোযোগ দেওয়া শুরু করেছেন, তারা তীব্র আকর্ষণ বোধ করছেন এবং সুখ অনুভব করছেন। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই এই পরিবর্তন আসতে পারে।

নিউ ইয়র্ক টাইমস-এ তার এই গবেষণাটি ‘মডার্ন লাভ কলাম’ নামে প্রকাশিত হয়েছে। বেশ কিছু প্রশ্ন এবং জবাব রয়েছে যার মাধ্যমে আপনি সম্পূর্ণ অপরিচিত একজনের প্রেমে পড়ে যেতে পারেন। এ গবেষণায় অ্যারোন দুই দলে মানুষ ভাগ করে নেন। একটি দলে জুটিবদ্ধভাবে নারী-পুরুষ কথা বলতে থাকেন। এভাবে তারা একে অপরের সঙ্গে টানা ৪৫ মিনিট কথা বলেন। অপর দল সবাই মিলে আলাপচারিতায় ব্যস্ত ছিলেন। যারা জুটিবদ্ধ হয়ে আলাপ করছিলেন, তাদের মাঝে সম্পর্ক অনেক এগিয়ে যায়। তারা নিজের পছন্দ-অপছন্দের বিষয়ে আলাপ করেন।

পরে এদের আরেকটু গভীর বা একান্ত বিষয় নিয়ে আলাপ করতে বলা হয়। এভাবে বেশ কয়েক দফা তারা ৪৫ মিনিট ধরে আলাপচারিতায় সময় কাটান। ছয় মাসের মধ্যে দেখা যায়, একটি জুটি একে-অপরের প্রেমে পড়ে যায়। এখানে দেখুন অ্যারোনে সেই প্রশ্নের সেট। এগুলো গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের আলাপচারিতায় প্রবেশ করিয়ে দেওয়া

হয়েছিল।
১. যদি একজনকে বেছে নিতে বলা হয়, তবে কার সঙ্গে ডিনারে যেতে ইচ্ছুক?
২. বিখ্যাত হতে চান? তবে কোন উপায়ে?

৩. মোবাইলে কল করার সময় কি আগে থেকে ঠিক করে নেন কি বলবেন এবং কেন?

৪. দিনটিকে মনের মতো করতে আপনার কি কি প্রয়োজন?
৫. শেষ কবে আপনি নিজের বা অন্যকারো আনন্দে খুশী হয়েছেন?
৬. আপনি ৯০ বছর বয়স পর্যন্ত যদি বাঁচেন এবং শেষ ৬০ বছর তিরিশ বছরের তরুণের তারুণ্য ফিরে পান, তবে কি করবেন?
৭. কিভাবে মরতে চান, এ নিয়ে কোনো গোপন ইচ্ছা রয়েছে?
৮. তিনটি বিষয়ের কথা বলুন যা আপনি এবং আপনার প্রিয় মানুষটির মাঝে দেখতে চান।
৯. জীবনের কোন বিষয়ের জন্যে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করবেন?
১০. বড় হয়ে ওঠার সময় একটি বিষয় বদলে ফেলার সুযোগ পেলে কোনটি বদলে করবেন?
১১. নিজের জীবন সম্পর্কে চার মিনিটি কিছু বলুন।
১২. আগামীকাল সকালে ঘুম থেকে উঠেই যদি একটি দক্ষতা অর্জন করেন, তবে কোনটি চাইবেন?
১৩. যদি একটি ক্রিস্টাল বল জীবনের সবকিছু বলে দিতে পারে, তবে কি জানতে চাইবেন?
১৪. বহুদিন ধরে যদি কোনো স্বপ্ন পুষে রাখেন, তবে তা পূরণ করছেন না কেন?
১৫. জীবনের সবচেয়ে বড় অর্জন কি?
১৬. বন্ধুত্বের মাঝে কোন বিষয়টি সবচেয়ে গুরুত্বের সঙ্গে দেখেন?
১৭. আপনার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ স্মৃতি কি?
১৮. আপনার সবচেয়ে ভয়ংকর স্মৃতি কি?
১৯. যদি আগামী এক বছরের মধ্যে মারা যাবেন বলে জানতে পারেন, তাহলে জীবনযাপনের কোন বিষয়টি বদলে ফেলবেন?
২০. আপনার কাছে বন্ধুত্বের মানে কি?
২১. ভালোবাসা ও স্নেহ আপনার জীবনে কি ভূমিকা রেখেছে?
২২. পার্টনারের সঙ্গে ভালো কিছু শেয়ার করতে হলে কোন ৫টি করবেন?
২৩. আপনার শৈশব কি অন্যদের চেয়ে বেশি সুখের ছিলো?
২৪. মায়ের সঙ্গে আপনার সম্পর্ক কতটা বন্ধুত্বপূর্ণ?
২৫. একসঙ্গে দুজন বসে থাকা অবস্থায় মনের তিনটি সত্য প্রকাশ করুন।
২৬. ‘এমন কেউ থাকতো যে তার সঙ্গে আমি…..শেয়ার করতে পারতাম’, শূন্যস্থান পূরণ করুন।
২৭. পার্টনারের সঙ্গে গভীর বন্ধুত্ব গড়ে ওঠাতে চাইলে কোন বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বলবেন।
২৮. অপরের কোন বিষয়টি ভালো লাগছে তা সততার সঙ্গে বলুন।
২৯. জীবনের অস্বস্তিকর কোনো অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরুন।
৩০. শেষ কবে কারো সামনে কেঁদেছিলেন?
৩১. ইতিমধ্যে ভালো লেগেছে এমন কোনো বিষয় পার্টনারের কাছে তুলে ধরুন।
৩২. কৌতুক করার ক্ষেত্রে খুব সিরিয়াস বিষয় কোনটি?
৩৩. যদি মৃত্যুর আগে প্রিয়জনকে কিছু বলার থাকে, তবে তা কি এবং এখনো কেন বলেননি?
৩৪. বাড়ি আগুন লাগলে প্রিয়জনকে বাঁচানোর পর আর কি বাঁচাতে ছুটে যাবেন?
৩৫. পরিবারের কার মৃত্যুতে সবচেয়ে বেশি কষ্ট পেয়েছেন এবং কেন?
৩৬. ব্যক্তিগত একটি সমস্যা তুলে ধরে পার্টনারের কাছে পরামর্শ চান।

কমেন্টস