জীবনে শান্তিতে থাকতে খুঁজুন বই পড়া নারী

প্রকাশঃ মার্চ ২৬, ২০১৮

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

অনেক পুরুষ বই পড়া নারীদের সঙ্গ পছন্দ করে না। কারণ কোনো নারী যদি পুরুষের চেয়ে বেশি জ্ঞানী হয়, তা অনেকেই সহজভাবে নিতে পারে না। সংসারের বাইরে নারীদের কোনো আলাদা জগৎ থাকতে নেই। তবে এ ধরনের আচরণ একেবারেই কাম্য নয়।

যেসব নারী বইপত্র পড়েন তাঁদের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ানোর সুফল জানিয়েছে জীবনধারা বিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাই।

আসুন জেনে নেই কেন বই পড়া নারী বিয়ে করার ৮ সুবিধা-

বিরক্ত করবে না

যেসব নারী বেশি বই পড়েন, প্রয়োজন ব্যতীত তাঁরা কথা বলেন না। তাই আপনার যখন নীরবতার প্রয়োজন হবে তা সহজেই পাবেন।

খুব ভালো শ্রোতা

বই পড়া নারীরা বরাবরই ভালো শ্রোতা হয়ে থাকেন। তাই আপনার কথা শোনার মতো ধৈর্য আর মানসিকতা তাঁর অবশ্যই থাকবে। এছাড়া আপনার যেকোনো সমস্যায় তিনি আপনাকে ভালো সমাধান দিতে পারবেন।

ধৈর্যশীল

বই পড়া নারীরা অবশ্যই ধৈর্যশীল হয়ে থাকে। কারণ ধৈর্য না থাকলে বই পড়ার মত কঠিন কাজটি কখনোই সম্ভব নয়। তাই এ ধাচের নারীদের সাথে যে কোনো বিষয় নিয়ে আপনি খুব একটা ঝামেলায় পড়বেন না।এছাড়া এমনো হবে তিনি ধৈর্যধরে অনেক কঠিন কাজটিও করে দেবে, যা আপনি পারবেন না।

জ্ঞান বিতরণ

কথায় আছে বই জ্ঞানের ভাণ্ডার। বই পড়লে মানুষের জ্ঞান বাড়বে এটাই স্বাভাবিক। তাই আপনার কোনো তথ্যের দরকার হলে কিংবা কোনো সমস্যায় সর্বাত্মক সহযোগিতা পাবেন তাঁর থেকে।

আলোচনা হবে অর্থপূর্ণ

যারা বই পড়েন তারা বরাবরই কম কথা বলেন। তাই অকারণে কথা বলে তিনি সময় নষ্ট করবেন না। তাঁর প্রতিটি আলোচনাই হবে অর্থপূর্ণ।

জ্ঞানের সঙ্গীর সঙ্গ

অন্য নারীদের তুলনায় বই পড়া নারীরা সঙ্গীর পছন্দ, অপছন্দ বুঝতে পারেন। তাই জ্ঞানী সঙ্গীর সঙ্গ ভালোই উপভোগ করতে পারবেন।

নিজের মতো থাকতে পারে

জ্ঞানী নারী কখনোই অতিরঞ্জিত বায়না ধরে না। আপনার অনুপস্থিতিতে কীভাবে নিজেকে তিনি সামলাবেন, তিনি তা ভালো করেই জানেন।

গোছানো জীবন

যেসব নারী বেশি বই পড়েন তাঁরা জানেন, কীভাবে জীবনকে গোছাতে হয়। আপনার জীবন যদি অগোছালো হয়, আপনার সঙ্গী তা গুছিয়ে দেবেন নিশ্চয়।

কমেন্টস