স্ত্রী সন্তানসম্ভাবী, অর্থকষ্টে নিজের শরীরে আগুন ধরিয়ে দিলেন ফিলিস্তিনি তরুণ!

প্রকাশঃ মে ২১, ২০১৮

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

গাজা উপত্যকায় ইসরাইলি অবরোধে ভয়াবহ অর্থনৈতিক দুর্দশায় হতাশ হয়ে ২০ বছর বয়সী এক ফিলিস্তিনি তরুণ নিজের শরীরে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। শনিবার প্রকাশ্যে একটি আবাসিক ভবনের সামনে তিনি নিজের শরীরে আগুন ধরিয়ে দেন। এ সময়ে আশপাশের লোকজন এসে কম্বল ও পানি দিয়ে আগুন নেভান।

আত্মহত্যা ইসলামে নিষিদ্ধ হওয়ায় অত্যন্ত রক্ষণশীল গাজায় এমন ঘটনার কথা কম শোনা যায়।  যদিও গত বছর উপত্যকাটিতে কয়েক ডজন আত্মহত্যা কিংবা আত্মহত্যার চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে। ফাতি হারব নামে ওই ফিলিস্তিনির নিজের শরীরে এই অগ্নিসংযোগের ঘটনা ভিডিও করে আশপাশের লোকজন অনলাইনে পোস্ট করেছেন।

ওই তরুণের মা মাজদা রোববার বলেন, একদিন আগে তার বড় ছেলে পাওনা টাকা আদায়ের কথা বলে ঘর থেকে বের হয়ে যায়। আধঘণ্টা পর পুলিশ তার দরজায় এসে কড়া নেড়ে জানায়, নিজের গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়ার পর তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ফাতি বর্তমানে অচেতন অবস্থায় গাজার আল শিফা হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে রয়েছেন।

মাজদা বলেন, তার ছেলে কেন এমনটি করেছে, তা তিনি জানেন না। তার ছেলের বউ সন্তানসম্ভাবী। কিন্তু গাজার অর্থনৈতিক বিরূপ পরিস্থিতির কারণে তার ছেলে নিজেকে অসহায় বোধ করছিলেন। মাজদা বলেন, যখন একজন লোকের স্ত্রী সন্তান জন্ম দিচ্ছে, অথচ তার হাতে কোনো পয়সা নেই, তখন সে কি করতে পারে।

ফাতি একজন শ্রমিক, যে অর্থের বিনিময় সব ধরনের কাজ করত। শিফা হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের প্রধান নাফেজ আবু সাবান বলেন, ফাতির শরীরের অর্ধেকটা জুড়ে দগ্ধ হয়েছে। শরীরের ভেতরে ধোঁয়া ঢুকে যাওয়ার কারণেও তিনি মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

কমেন্টস