সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলায় ‘রুশ যোদ্ধা নিহত’

প্রকাশঃ ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলে গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলায় কমপক্ষে দুই রুশ যোদ্ধা নিহত হয়েছে। নিহতের সহযোগীরা ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

তাদের রাশিয়ার বেসরকারি সামরিক প্রতিষ্ঠান ভাড়া করেছিল সিরিয়ার সরকারপন্থী বাহিনী।

বিবিসি’র খবরে বলা হয়, গত সপ্তাহের সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলে মার্কিন বিমান হামলায় আসাদ সরকারপন্থী শতাধিক যোদ্ধা নিহত হয়। তার মধ্যে এসব রাশিয়ান যোদ্ধা ছিল। তবে তারা রাশিয়ার সেনাবাহিনীর সদস্য নয়। দেশটির বেসরকারি সামরিক কোম্পানির সদস্য ছিলেন তারা।

মার্কিন কর্মকর্তারা বলেছেন, গত ৭ ফেব্রুয়ারি সিরিয়ার খুরশাম ও দেইর আল জৌর শহরের কাছে সরকারপন্থী কয়েকশ যোদ্ধা যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত কুর্দি সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেসের (এসডিএফ) ওপর হামলা চালায়।

সে সময় সেখানে মার্কিন সামরিক উপদেষ্টারাও উপস্থিত ছিল। ওই হামলার প্রতিক্রিয়ায় হামলাকারীদের ওপর বিমান হামলা শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র।সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, ৭ ফেব্রুয়ারির হামলায় বেশ কয়েকজন নিহত। সে সময় মার্কিন বাহিনীর ওপর নিষ্ঠুর গণহত্যার অভিযোগ আনা হয়।

তবে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছিল, সিরিয়ায় আইএসের বিরুদ্ধে অভিযান চালানোর সময় সরকারপন্থী বাহিনী মার্কিন বিমান হামলার শিকার হয়। তবে সেখানে তাদের কোনও সেনা সদস্য ছিল না বলে দাবি করে রাশিয়া।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিবিএন গত ৮ ফেব্রুয়ারি বিষয়টি নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করে। সে সময় খবরে বলা হয়, যদি নিহতদের মধ্যে রশিয়ানরা থাকে, তাহলে মার্কিন বিমান হামলায় তারাই প্রথম নিহত রাশিয়ান হবেন।

তবে পরে বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যায়। তবে যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যমে প্রথম প্রতিবেদন প্রকাশের সময় রাশিয়ার পক্ষ বিষয়টি পরিষ্কার করা হয়নি।

মঙ্গলবার দুই রাশিয়ান যোদ্ধার নিহতের বিষয়টি বিবিসি’কে নিশ্চিত করেছেন তাদের সহযোগীরা। তারা ৭ ফেব্রুয়ারির হামলায় তারা নিহত হয়। নিহতরা হলেন, রাশিয়ার পশ্চিমাঞ্চলের কালিনিনগ্রাড অঞ্চলের ভøাদিমির লোগিনোভ ও মস্কোর কিরিল অ্যানায়েভ।

তবে কয়েকটি সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, ওই হামলায় আরও বেশ কয়েকজন রাশিয়ান যোদ্ধা নিহত হয়েছে। তারা সবাই রাশিয়ান বেসরকারি সামরিক কোম্পানি ওয়াগনারের সদস্য। তবে কোম্পানিটির পক্ষ কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

কমেন্টস