ইরানি সেনা ঘাঁটিতে ইসরায়েলের হামলা, যুক্তরাষ্ট্রের পূর্ণ সমর্থন

প্রকাশঃ ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

সিরিয়ায় ইরানি সেনাদের ঘাঁটি ও অবস্থানে ইসরায়েলের বিমান হামলার প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতরের মুখপাত্র মেজর আদ্রিয়ান র‍্যানকিন-গ্যালো ইসরায়েলের যুক্তরাষ্ট্রের এই সমর্থনের কথা ঘোষণা করেছেন।

সাংবাদিকদের মেজর আদ্রিয়ান জানান, ইসরায়েলের অধিকার রয়েছে নিজেকে সুরক্ষিত রাখার। মধ্যপ্রাচ্যে দেশটি আমাদের ঘনিষ্ঠ নিরাপত্তা সহযোগী। দেশটির ভূখ- ও মানুষকে হুমকি রক্ষা করার অধিকারের প্রতি আমাদের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে।

ইরানি ড্রোনকে নিজেদের আকাশসীমায় ভূপাতিত করার দাবি তোলে সিরিয়ায় ইরানের সেনাদের অন্তত ১২টি ঘাঁটি ও অবস্থানে বড় ধরনের হামলা চালায় ইসরায়েল। সিরিয়ায় পাল্টা হামলায় ভূপাতিত হয় ইসরায়েলের যুদ্ধবিমান।

এ ঘটনার পর ইরান-সিরিয়া ও ইসরায়েলের মধ্যে সীমান্তে উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছে। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, সিরিয়া-ইসরায়েল সীমান্তে পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। যদিও যেকোনও সময় তা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে। উভয়পক্ষ অতীতের যে কোনও সময়ের তুলনায় সশস্ত্র সংঘাতে জড়িয়ে পড়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছে।

পেন্টাগন মুখপাত্র উল্লেখ করেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সিরিয়ায় ইসরায়েলি সামরিক অভিযানে অংশ নেয়নি। একই তিনি ইরানকে মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিতিশীল কর্মকা- পরিচালনা বিরত থাকার বিষয়ে সতর্ক করেন।

এর আগে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নারী মুখপাত্র হিদার নোয়ার্টও সিরিয়ায় ইসরায়েলি হামলার প্রতি সমর্থনের কথা জানিয়েছিলেন।

এদিকে, সিরীয় প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের সমর্থক ও ইরান সমর্থিত লেবাননের হিজবুল্লাহ গোষ্ঠী এক বিবৃতিতে দাবি করেছে, সিরিয়ার আকাশ প্রতিরক্ষা বাহিনীর গুলিতে ইসরায়েলি যুদ্ধবিমান ভূপাতিত হওয়ার ঘটনার মধ্যদিয়ে নতুন কৌশলগত পর্যায় শুরু হয়েছে।

এর ফলে সিরিয়ার আকাশে ইসরায়েলের হস্তক্ষেপ সীমিত পড়বে। সিরিয়ায় ইসরায়েলি হামলায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আসাদের ঘনিষ্ঠ মিত্র রাশিয়া।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পরিস্থিতি আরও খারাপের যাতে না যায় সেজন্য সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে সংযত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। একই সঙ্গে সিরিয়ায় রুশ সেনাদের জীবন হুমকির মুখে পড়ে এমন পদক্ষেপ নিয়েও হুঁশিয়ারির কথা জানিয়েছে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

কমেন্টস