বিক্ষোভের মুখে সংস্কার কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে তিউনিসিয়া সরকার

প্রকাশঃ জানুয়ারি ১৪, ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

সেবা খাত সংকোচনের বিপরীতে চলমান বিক্ষোভের মুখে বেশ কয়েকটি সামাজিক খাতে সংস্কার কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে তিউনিসিয়া সরকার।

চিকিৎসা, গৃহায়ন এবং দরিদ্রদের জন্য সহায়তার পরিমাণ বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়ে এরইমধ্যে পার্লামেন্টে সংস্কার পরিকল্পনা জমা দেওয়া হয়েছে। তিউনিস কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি খবরটি জানিয়েছে।

রাজনৈতিক দল ও ট্রেড ইউনিয়নগুলোর সঙ্গে সরকার পক্ষের বৈঠক গত ডিসেম্বরে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল সতর্ক করে বলেছিল, বাজেট ঘাটতি কমাতে তিউনিসিয়াকে ‘জরুরি ব্যবস্থা’ নিতে হবে।

জানুয়ারির শুরুতেই দেশটির সরকার ২০১৮ সালের বাজেটের আওতায়দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি ওকর বাড়ানোর ঘোষণা দেয়। আর এর পর পরই বিক্ষোভে নামে তিউনিসিয়ার মানুষ।

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া ব্যক্তিদের ওপর ব্যাপক ধরপাকড় চালায় দেশটির কর্তৃপক্ষ। গ্রেফতার হয় ৮০০ জনেরও বেশি মানুষ। বিপুল সংখ্যক মানুষের গ্রেফতারে শুক্রবার উদ্বেগ জানায় জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক কমিশন।

তবে বিক্ষোভের নেপথ্যে বিদেশি মিডিয়াগুলোর অপপ্রচারকে দায়ী করছে তিউনিসিয়া। বিক্ষোভে বিদেশি ইন্ধনের কথা বললেও শনিবার রাজনৈতিক দল, ট্রেড ইউনিয়ন নেতৃত্ব এবং চাকরিদাতাদের সঙ্গে দুই ঘণ্টার জরুরি বৈঠকে বসেন প্রেসিডেন্ট।সেখান সংস্কারের ঘোষণা দেওয়া হয়।

তিউনিসিয়ার সামাজিক কর্মকর্তা বিষয়ক মন্ত্রী মোহাম্মদ ত্রাভেলসি জানান, সহায়তার অপেক্ষায় থাকা মানুষদের জন্য কল্যাণ ভাতার পরিমাণ ১৭ কোটি দিনার (৭ কোটি ডলার) বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে সরকার।

তিনি বলেন, ‘এর মধ্য দিয়ে দরিদ্র ও মধ্যবিত্ত পরিবারগুলোকে সহায়তা দেওয়া যাবে।’ চিকিৎসা সেবা ও গৃহায়ণে সংস্কার আনা হবে বলেও নিশ্চিত করেছেন তিনি।

কমেন্টস