যেকোন মুহূর্তে আমেরিকা-উ. কোরিয়ার যুদ্ধ শুরু, প্রস্তুতি সম্পন্ন জাপানের

প্রকাশঃ আগস্ট ১২, ২০১৭

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

আমেরিকা এবং উত্তর কোরিয়ার মধ্যে কার্যত যুদ্ধের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েই আছে। যেকোন মুহূর্তে বেঁধে যেতে পারে বিশ্বযুদ্ধ! এই আশঙ্কায় জাপানের রাজধানী টোকিওর একেবারে প্রাণকেন্দ্রে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন করা হল।

জাপানের ওপর দিয়ে গুয়ামে মার্কিন ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হবে বলে উত্তর কোরিয়াকে। আর এই হুমকির পরেই চরম এই পদক্ষেপ নেওয়া হল।

প্রকাশিত ছবিতে দেখা গেছে, টোকিওর একটি চত্বরে পিএসি-৩ প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র ইউনিট মোতায়েন করা হয়েছে। টোকিওর ওপর দিয়ে উত্তর কোরিয়ার কোন ক্ষেপণাস্ত্র যাওয়ার চেষ্টা করলে সেগুলিকে মুহূর্তের মধ্যে ধ্বংস করার জন্যে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন জাপানি সামরিক কর্মকর্তারা।

এদিকে উত্তর কোরিয়া কর্তৃক যুক্তরাষ্ট্রের গোয়ামে হামলার হুমকির পর যুদ্ধের জন্য জাপান সম্পূর্ণ প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রতিরক্ষমন্ত্রী ইতসুনোরি ওনোদেরা। তিনি বলেন, জাপান দেশটির পূর্বাঞ্চলে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধী পিএসি-৩ প্রযুক্তি স্থাপন করছে, যাতে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র জাপানের সীমা লংঘন করতে না পারে।

দেশটির মন্ত্রিপরিষদ সচিব ইয়ুশিহিদে ছুগা জানিয়েছেন, আমরা সম্পূর্ণ সজাগ রয়েছি। এখন আমরা যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুত। জাপানের সীমানায় যেকোনো ক্ষেপণাস্ত্র পেলে ভূপাতিত করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

অপরদিকে জাপানে উত্তেজনা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ‘জাপান বোম্ব শেল্টার’ বা বোমা থেকে রক্ষা পেতে আশ্রয় কেন্দ্রের বিক্রি বেড়েছে। এছাড়া মার্কিন দ্বীপ হাওয়াইয়ে সতর্কীকরণ ব্যবস্থা বসানোর তোড়জোড় চলছে। উত্তর কোরিয়ার সম্ভাব্য হামলা সম্পর্কে সেখানকার ১৪ লাখ অধিবাসীকে আগেভাগে খবর দেওয়ার জন্য চলছে এই তৎপরতা।

অবশ্য উত্তর কোরিয়ার হুমকিতে অভ্যস্ত দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলের পরিস্থিতি খুবই শান্ত রয়েছে। পিয়ংইয়ংয়ের নতুন হুমকিতে সেখানে কোন উল্লেখযোগ্য তৎপরতা বা চাঞ্চল্য চোখে পড়ছে না।

কমেন্টস