কোমায় থেকে সন্তান প্রসব করলেন নারীপুলিশ

প্রকাশঃ এপ্রিল ২১, ২০১৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক-

গত বছরের শেষের দিকের ঘটনা। দায়িত্বপালনের সময় সহকর্মীদের সঙ্গে গাড়িতে যাচ্ছিলেন নারী পুলিশ আমেলিয়া বানান। তখন তিনি ছিলেন অন্তঃসত্ত্বা। হঠাৎ দুর্ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত হন আমেলিয়া।

নিস্তেজ অবস্থায় আমেলিয়াকে নেওয়া হয় আর্জেন্টিনার পোসাদাস এলাকার একটি হাসপাতালে। সেখানেই কয়েক মাস কোমায় ছিলেন ৩৪ বছরের আমেলিয়া। এ অবস্থাতেই জন্ম হয় ছোট্ট সান্তিনোর।

মা হাসপাতালের বিছানায় ঘুমিয়ে। ছেলে সান্তিনো তাই বড় হতে থাকে খালা নর্মার কাছে। প্রতিদিন একবার অচেতন মায়ের সঙ্গে দেখা করতে নিয়ে আসা হতো তাকে। কিন্তু জাগতেন না মা।

আমেলিয়ার ভাই সিজার বলেন, এ বছরের শুরুতে বোন মাঝেমধ্যে নড়াচড়া করতেন। মনে হতো তাঁর জ্ঞান ফিরছে। গতকাল বৃহস্পতিবার পবিত্র সপ্তাহে (হোলি উইক) আমরা হাসপাতালে আমেলিয়ার ঘরে ছিলাম। সে সময় শুনলাম কে যেন বলে উঠল ‘হ্যাঁ’। ছুটে আমেলিয়ার কাছে গেলাম। সে মনে রাখার মতো এক মুহূর্ত।

দুর্ঘটনার বর্ণনা দিয়ে সিজার বলেন, গত নভেম্বর মাসের এক তারিখে দুর্ঘটনা ঘটে। ওই গাড়িতে আমেলিয়ার স্বামীও ছিলেন। তিনিও একজন পুলিশ কর্মকর্তা। বড়দিনের কিছুদিন আগে কোমায় থাকা অবস্থাতেই অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে জন্ম হয় আমেলিয়ার ছেলে সান্তিনোর। মা অসুস্থ হলেও ছোট্ট সান্তিনো ছিল সুস্বাস্থ্যের অধিকারী।

কোমা থেকে জেগে বোনের কোলে সান্তিনোকে দেখে আমেলিয়া ভাবেন সে তাঁর ভাগনে। পরে পরিবার তাঁকে সুখবর জানায়।

আমেলিয়া এখন একটু একটু করে দুর্ঘটনার কথা মনে করতে পারেন।

সিজার বলেন, চিকিৎসকেরা আমেলিয়ার সেরে ওঠাকে অলৌকিক বলে মনে করছেন।

আমেলিয়ার চিকিৎসক মার্সেল ফেরেরা বলেন, ‘মস্তিষ্কের বড় ধরনের আঘাত সত্ত্বেও আমাদের অবাক করে আমেলিয়া সেরে উঠেছেন। তাঁর পুরোপুরি সারতে এখনো সময় লাগবে। সবাইকে ধৈর্য ধরতে হবে।’

Advertisement

কমেন্টস