আকাশ থেকে মার্কিন যুদ্ধজাহাজকে অচল করে দিয়েছে রাশিয়া

প্রকাশঃ এপ্রিল ২০, ২০১৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক-

মুখোমুখি অবস্থানে দাঁড়িয়েছে দুই পরাশক্তি রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র। ভারি অস্ত্রের প্রদর্শনীসহ নানা কৌশল নিচ্ছে একে অপরের বিপক্ষে। সম্প্রতি মার্কিন আকাশসীমায় অনুপ্রবেশ ঘটেছে রুশ বোমারু বিমানেরও। কিন্তু এবার  অস্ত্র নয়, আমেরিকাকে আটকাতে এবার নতুন উপায় ভাবছে রাশিয়া।  

মস্কোর দাবি, তারা এবার শুধু ইলেকট্রিক জ্যামার দিয়েই নিষ্ক্রিয় করে দিতে পারবে মার্কিন যুদ্ধজাহাজ। রাশিয়ার একটি নিউজ রিপোর্ট অনুযায়ী, ‘মস্কোর সামরিক প্রধানগণ রাশিয়ান ইলেকট্রিক ওয়ারফেয়ারের মাধ্যমে যে কোনও যুদ্ধজাহাজ বা রাডারকে নিষ্ক্রিয় করে দিতে সক্ষম। রাশিয়ার দাবি, মার্কিন নেভির ডেস্ট্রয়ার ইউএসএস ডোনাল্ড কুক নাকি একবার রাশিয়ার বিমান থেকে প্রয়োগ করা প্রযুক্তির কাছে হার মেনে থেমে গিয়েছিল কৃষ্ণ সাগরে।

ওই রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, ওই মার্কিন যুদ্ধজাহাজের চারপাশে উড়ে বেড়াচ্ছিল Sukhoi Su-24 রাশিয়ান যুদ্ধবিমান। এরপরেই ওই যুদ্ধজাহাজের একজন ক্রু সোশ্যাল মিডিয়ায় জানা, তাঁদের জাহাজে থাকা লোকেটিং ডিভাইস কাজ করা বন্ধ করে দিয়েছিল আচমকা। আর ওই যুদ্ধবিমানেই ছিল রাশিয়ার আধুনিকতম ইলেকট্রনিক ওয়ারফেয়ার সিস্টেম Khibiny. যা থেকে শক্তিশালী ইলেকট্রনিক ওয়েভ বেরিয়ে নিষ্ক্রিয় করে দিয়েছিল জাহাজের সিস্টেম। এমনকি ওই রিপোর্টে আরও উল্লেখ করা হয়েছে যে ইউএস জেনারেল ফ্রাঙ্ক গোরেন বলেন, রাশিয়ার ইলেকট্রিক অস্ত্র আমেরিকার মিসাইল, এয়ারক্রাফটকেও নিষ্ক্রিয় করে দেয়।

মস্কো আরও জানিয়েছে, শত্রুপক্ষকে থামিয়ে দিতে আর দামি অস্ত্রের কোনও প্রয়োজন নেই। দিনকয়েক আগেই উত্তর কোরিয়ার উপকূলে USS Carl Vinson এয়ারক্রাফট কেরিয়ার পাঠিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আরও দুটি এয়ারক্রাফট কেরিয়ার পাঠানোর খবরও পৌঁছেছে। এরপরই এই খবর প্রকাশ্যে আনল রাশিয়া।

অন্যদিকে, রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী সূত্রে জানা গিয়েছে, বিমানধ্বংসকারী মিসাইল মোতায়েনের প্রক্রিয়া সু্ষ্ঠু উপায়ে সম্পন্ন হয়েছে৷ যদিও এ ধরণের সামরিক তৎপরতা নিয়মিত বিষয়৷ রুশ বিমান বাহিনীর হাজারের বেশি সেনা মহড়ায় অংশ নিয়েছেন৷ প্রতিকূল পরিস্থিতিতে তীব্র আক্রমণে যাওয়ার লক্ষ্যেই এই অনুশীলন৷ অত্যাধুনিক মোবাইল জ্যামার দিয়ে মস্কোর আকাশকে বেঁধে রাখার পরিকল্পনা করা হয়েছে৷

কমেন্টস