Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৯ বুধবার, সেপ্টেম্বার ২০১৮ | ৪ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

‘ভার্চুয়াল প্রযুক্তি ব্যবহার করে দেশে সম্পদের সীমাবদ্ধতা কাটিয়ে ওঠা যাবে’

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০ জানুয়ারী ২০১৮, ০৬:৪৮ PM আপডেট: ১০ জানুয়ারী ২০১৮, ০৬:৪৮ PM

bdmorning Image Preview


রায়হান শোভন ।।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ভার্চুয়াল প্রযুক্তি ব্যবহার করে দেশে সম্পদের যে সীমাবদ্ধতা অাছে তা কাটিয়ে ওঠা সম্ভব।  তিনি বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে অনেক সেক্টরে দুর্নীতি কমিয়ে অানতে সক্ষম হয়েছি।

গতকাল মঙ্গলবার ঢাকা অন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় হাতিলের এই ভার্চুয়াল মিনি প্যাভিলিয়নটি উদ্বোধনকালে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, বিশ্বে বতর্মানে তথ্য প্রযুক্তি সেক্টরে ১০০ বিলিয়ন ডলারের বাজার রয়েছে। আর ২০২১ সালে মধ্যে আমরা এই সেক্টর থেকে আমরা ২২ বিলিয়ন ডলার অায় করতে চাই। সে লক্ষে ২০ লক্ষ্য তরুণ- তরুণীর কর্মসংস্থান করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী, ‘আমি এক কথায় বলতে চাই প্রধানমন্ত্রী শেখ  হাসিনার যে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন তা এখন আর তার একার  স্বপ্ন নয় তা এখন সবার স্বপ্নে পরিণত হয়েছে। আর এই স্বপ্ন বাস্তবায়নে আর খুব বেশি দেরি নেই।

ডিজিটাল অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে ফার্নিচার কেনাকাটায় নতুন মাত্রা যোগ করল হাতিল। বাণিজ্য মেলায় থ্রিডি প্রযুক্তি ব্যবহার করে প্রতিটি ফার্নিচারকে ভার্চুয়াল অভিজ্ঞতায় পরখ করে নিতে পারবেন ক্রেতারা। এছাড়া এক স্থানে বসে চোখের সামনে ফার্নিচারের রঙ পরিবর্তন ও একাধিক ফার্নিচার এক সঙ্গে পর্যালোচনা করে দেখা যাবে

এজন্য হাতিলকে ধন্যবাদ দিয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী বলেন, হাতিলকে অনুসরণ করে অন্যরা যদি এভাবে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে তাহলে অামরা খুব সহজেই আমাদের কাঙ্খিত ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন পুরণে সক্ষম হবো।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জানানো হয়, এ ধরনের ভার্চুয়াল শোরুম প্রথম হাতিল নিয়ে এসেছে। যার মাধ্যমে ক্রেতা সরাসরি পণ্য পছন্দ ও ক্রয় করতে পারবে। এই ভার্চুয়াল প্রযুক্তির মাধ্যমে ক্রেতা একটি ভারি ফার্নিচার পুরো উল্টো বা যে কোন অাঙ্গিকে দেখতে পারবে। যা বাস্তবে সম্ভব হয় না। এছাড়া এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে ফার্নিচার বাড়ির কোন স্থানে রাখলে কেমন দেখাবে তা নিজের মতো করে দেখা যাবে। এছাড়া ক্রেতা ফার্নিচার বাছাই করে দাম ও ডেলিভারি তারিখ জেনে নিয়ে মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন ভার্চুয়াল শোরুম থেকে।

হাতিলের অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর তৌহিদুল ইসলাম বিডিমর্নিংকে বলেন, একটি প্যাভিলিয়ানে সকল ধরনের পণ্য রাখা যায় না। হাতিলের এ প্রকল্পের মাধ্যমে এই সমস্যার সমাধান হবে। ক্রেতারা ভার্চুয়াল পণ্য দেখার পাশাপাশি নিদিষ্টি রুম সাজাতে পারবেন। এছাড়া আসবাবের রং এবং অন্যান্য বিষয়টি ভার্চুয়ালি পরিবর্তন করা যাবে।

Bootstrap Image Preview