‘ব্লু হোয়েল’ গেইম খেলে আত্নহত্যা করেনি; মুখ খুলেছেন কিশোরীর পিসি

প্রকাশঃ অক্টোবর ৯, ২০১৭

মেরিনা মিতু।।

মুহুর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়া একটি মিথ্যে রটনার জের ধরে গত পাঁচদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তোলপাড় চলছে, সেই সাথে রয়েছে আতঙ্ক। আর তা হলো, ব্লু হোয়েল গেইম খেলে এক কিশোরীর আত্নহত্যা। তবে বিষয়টি সম্পুর্ণ মিথ্যা বলে দাবী এবং প্রমাণ করেন কিশোরীর পিসি।

গতকাল রবিবার (৮ অক্টোবর) দুপুরের দিকে নিহত কিশোরীর পিসি তার নিজ ফেসবুক প্রোফাইলে একটি পোস্টের মাধ্যমে নিশ্চিত করেন যে স্বর্ণার মৃত্যুর পিছনে ব্লু হোয়েল দায়ী নয়।

স্বর্ণার পিসী কেয়া চৌধুরী জুঁই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় লোক প্রশাসন বিভাগের ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি তার ফেসবুক প্রোফাইলে স্বর্ণার আত্মহত্যার পেছনে ব্লু হোয়েলের খবরটি ভুয়া প্রমান করে এই পোস্ট করেছেন।

কিশোরীর পিসি কেয়া চৌধুরীর ফেসবুকের পোস্ট

 

তার পোস্ট থেকে এ ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া যায় যে, স্বর্ণার আত্নহত্যা কোনো গেইমের কারণে হয়নি। তিনি বলেছেন, স্বর্ণার শরীরে কোনোপ্রকার কাটা ছেড়া বা কোনোপ্রকার দাগ ছিলো না, এমনকি তার মোবাইলেও এ ধরণের কোনো তথ্যও পাওয়া যায়নি বলে তিনি জানান।

তবে ঠিক কি কারণে এই আত্নহত্যা এই মৃত্যু সে ব্যাপারে তিনি কিংবা কিশোরীর পরিবার কেউ সঠিক বলতে পারছেন না। সব শেষে তিনি সবার কাছে এই অনুরোধ করেছেন যেনো এ ঘটনা নিয়ে আর কোনো গুজব রটানো হয়।

উল্লেখ্য, গত বুধবার রাতে রাজধানী ঢাকার সেন্ট্রাল রোডের এক কিশোরী অপূর্ব বর্ধন স্বর্ণা আত্যহত্যা করে ফ্যানের সাথে ফাঁসি নিয়ে। গত বৃহস্পতিবার সকালে ওই কিশোরীর লাশ উদ্ধার করা হয় তার পড়ার কক্ষ থেকে। তুখোড় মেধাবী এই কিশোরী স্কুলের ফার্স্ট গার্ল হিসেবেই পরিচিত ছিল সে। ওয়াইডব্লিউসিএ হাইয়ার সেকেন্ডারি গালর্স স্কুলে প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত সম্মিলিত মেধা তালিকায় ছিল প্রথম। ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হয় ফার্মগেটের হলিক্রস স্কুলে। বর্তমানে পড়ছিল অষ্টম শ্রেণিতে। নিহতের পরিবার তাদের মেয়ের মৃত্যুর কারণ হিসেবে ‘ব্লু হোয়েল’ গেইমস বলে ধারণা করেন।

তেরো বছরের এই কিশোরীর আত্নহত্যার পেছনের কারণ জানা না গেলেও এতটুকু নিশ্চিত যে সে কোনো ব্লু হোয়েল গেইমের স্বীকার না। তবে আসলে কি লুকিয়ে আছে এই আত্নহত্যার পেছনে তা হয়তো খুব শীঘ্রই আমাদের সামনে চলে আসবে।

Advertisement

কমেন্টস