ঠাকুরগাঁওয়ে ঝাঁকে ঝাঁকে এসেছে অতিথি পাখির দল

প্রকাশঃ ডিসেম্বর ১৯, ২০১৬

রহিম শুভ, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি-

শীতের আগমনের পদধ্বনিতে প্রকৃতি সেজে উঠেছে নতুন আমেজে। প্রকৃতির এ রূপটাকে বাড়িয়ে দিতে প্রতি বছর এই শীতে আসে অতিথি পাখিরা। এসে আমাদের মনকে আরো রাঙিয়ে তোলে নতুন ছন্দে।

শীতের আগমনী বার্তা নিয়ে ঠাকুরগাঁও রানিশংকৈল উপজেলার রামরাই দিঘিতে ঝাঁকে ঝাঁকে এসেছে অতিথি পাখির দল। হাজার হাজার পাখির আগমনে পুরো দিঘির এলাকা পাখির রাজ্যে পরিনত হয়েছে।

ঠাকুরগাঁওয়ে ঝাঁকে ঝাঁকে এসেছে অতিথি পাখির দল

সন্ধ্যা নামার সাথে সাথেই রামরাই দিঘির পাড়ে লিচু গাছে আশ্রয় নেয় অতিথী পাখিরা। ভোর হলেই পুনরায় পাখিরা খাবারের সন্ধানে রামরাই দিঘিতে সাতাঁর দেয়। আর এসব পাখিদের মিলনমেলা দেখতে প্রতিদিন অনেক দুর-দুরান্ত থেকে রামরাই দিঘিতে ছুটে আসছেন পাখিপ্রেমীরা।

প্রতি বছর শীতের শুরুতে হাজার হাজার মাইল পাড়ি দিয়ে আমাদের এই সবুজ-সুন্দর দেশে আসে ঝাঁকে ঝাঁকে রং বাহারি অতিথি পাখি। প্রচন্ড শীতের দেশ সুদূর সাইবেরিয়া। পাখিরা সেই সাইবেরিয়ায় শীতের হাত থেকে রেহাই পেতে অভয়াশ্রম হিসেবে বেছে নেয় আমাদের এই বাংলাদেশকে। এদেশের নদ-নদী, হাওর-বাঁওড় এরা যেন খুব ভালোবাসে। এগুলো যেন সুদীর্ঘকাল ধরে পরিচিত তাদের।

রামরাই দিঘি এলাকার বাসিন্দা আব্দুস সালাম জানান, সারাদিন অনেক মানুষ আসে এসব অতিথি পাখি দেখার জন্য। এদের কলকাকুলিতে মূখর হয়ে আছে রামরাই দিঘি এলাকা। আমরা এলাকাবাসি সজাগ আছি কেও যেন এদের শিকাড় করতে না পারে।

ঠাকুরগাঁওয়ে ঝাঁকে ঝাঁকে এসেছে অতিথি পাখির দল

ঠাকুরগাঁওয়ের পাখিপ্রেমী রেজাউল হাফিজ রাহী জানান, আমাদের এখানে যে অতিথি পাখি এসছে তার নাম ছোট সরালি। অতিথি পাখিরা আমাদের দেশে অতিথি হয়ে আসে। অতিথি পাখিরা যাতে আমাদের এখানে নির্ভয়ে থাকতে পারে তার জন্য প্রশাসনকে ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে।

অতিথি পাখির আগমনে এ এলাকার যেমন সুন্দর্য বৃদ্ধি পায় তেমনি এরা প্রকৃতির ভারসাম্য রক্ষায় সহযোগিতা করে। তাই অতিথি পাখি শিকাড়কে আমরা সবাই না বলি।

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম জানান, এই ছোট সরালি জাতের অতিথি পাখি আমাদের দেশে প্রতি শীতকালেই আসে। এরা আবার এখানে এসে ডিম ও দেয়। এদেরকে শিকাড় করা দন্ডনীয় অপরাধ। তাই সকলকে অতিথি পাখি শিকাড় না করার আহ্বান জানান তিনি।

Advertisement

কমেন্টস