‘পদ্মাবত’ মুক্তি পেলে গণআত্মহত্যা করবে রাজপুত নারীরা

প্রকাশঃ জানুয়ারি ১৯, ২০১৮

বিডিমর্নিং বিনোদন ডেস্ক-

বলিউডের স্মরণকালে মুক্তির আগেই সবচেয়ে বিতর্কিত ছবির তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে ‘পদ্মাবতী’। ইতিহাস আশ্রয়ী এই সিনেমা নিয়ে আপত্তির মুখে শেষ পর্যন্ত ‘পদ্মাবতী’ নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় ‘পদ্মাবত’। বহুদিন ছবিটির মুক্তি ঝুলে থাকার পর সম্প্রতি ছবিটি মুক্তিতে কোনো বাধা নেই জানিয়ে আদেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট। কিন্তু আদালতের এমন নির্দেশনার পরও নতুন করে ছবিটির মুক্তি নিয়ে শুরু হয়েছে হট্টগোল।

শোনা যাচ্ছে, ‘পদ্মাবত’ মুক্তি পেলে গণআত্মহত্যা করবে রাজপুত নারীরা।সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের পর এমন হুমকি দিল জওহর ক্ষত্রিয় মঞ্চ। গতকাল ভারতজুড়ে পদ্মাবতী মুক্তির কথা জানিয়ে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। এরপরই রাজপুত কর্নি সেনার অধীনস্থ সংগঠন জওহর ক্ষত্রিয় মঞ্চের পক্ষ থেকে জওহর অর্থাৎ গণ আত্মহত্যার হুমকি দেওয়া হয়।

তাদের দাবীর পরিপ্রেক্ষিতেই ছবির নাম ‘পদ্মাবতী’ থেকে ‘পদ্মাবত’ করা হয়েছে। তারপরেও কেনো তারা ছবিটি নিয়ে এমন বিতর্ক তৈরি করছেন?-এমন প্রশ্নে তাদের জবাব,ছবির নাম পরিবর্তন করলে হবে না। ছবিতে যে তথ্যগুলি বিকৃত করা হয়েছে, সেগুলো কীভাবে আমরা মেনে নেব? আমরা রানী পদ্মাবতীকে সম্মান করি। তার সম্মানের জন্য নিজেদের উৎসর্গ করে দেব।

পরিচালক সঞ্জয় লীলা বানশালিকে বর্তমানের আলাউদ্দিন খিলজি বলে কটাক্ষ করে ক্ষত্রিয় মঞ্চের এক মহিলা। জওহরই রানি পদ্মাবতীর সম্মানরক্ষার শেষ অবলম্বন বলে জানান তিনি।

এনিয়ে ক্ষত্রিয় মঞ্চের প্রধান বলেন, প্রথম থেকেই আমরা ছবিটির মুক্তির বিরোধিতা করেছি। এরপরও সরকার আমাদের দাবি মানেনি। তাঁরা সঞ্জয় লীলা বানশালির পক্ষ নিয়েছে। তাই  আগামী ২৪ জানুয়ারি আমাদের সব নারীরা জওহর করে এর প্রতিবাদ করব। আমরা মৃত্যুকে ভয় পাই না।

উল্লেখ্য যে,পদ্মাবতীর কাহিনী আবর্তিত হয়েছে ঐতিহাসিক এক ঘটনার ছায়া অবলম্বনে। যার প্রধান চরিত্র রাজস্থানে অবস্থিত চিতোরের রাণী পদ্মিনী। আর তার সাথে দিল্লির মুসলিম সুলতান আলাউদ্দিন খিলজির প্রেম নিয়েই বানসালীর এ সিনেমা। কিন্তু সেখানেই এসেছে ইতিহাস বিকৃতির অভিযোগ। ঐতিহাসিক এই ছবিতে অভিনয় করেছেন রনবীর সিং, দীপিকা পাডুকোন এবং শহীদ কাপুর।

কমেন্টস