ফেসবুকে কটু বাক্যে জর্জরিত ভাবনা

প্রকাশঃ জানুয়ারি ১৪, ২০১৮

বিডিমর্নিং বিনোদন ডেস্ক-

সম্প্রতি একটি শীর্ষ স্থানীয় অনলাইন পোর্টালকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ভাবনা বলেন, ‘বাংলাদেশের কোনও ব্রান্ড আমি কিনিও না, পড়িও না। বাংলাদেশে কি কোনও ব্রান্ড আছে নাকি।’ এই মন্তব্যের প্রকাশের পরপরই নড়েচড়ে উঠেছেন নেটিজেনরা। এর পর থেকেই কটু বাক্যে জর্জরিত হচ্ছে তার নাম।

‘দুই দিনের বৈরাগী ভাতকে বলে ফ্রাইড রাইস’, ‘ভাল করে আয়নায় নিজেকে দেখেন’, ‘মানসিকতা এতো নিচু হয় ক্যামনে’- ফেসবুকে এ রকম নানা তির্যক মন্তব্যে ক্ষত-বিক্ষত হচ্ছেন অভিনেত্রী ভাবনা।  তাদের মতে গর্ব করার মতো অনেক ব্রান্ড রয়েছে বাংলাদেশের অথচ ভাবনার মতো একজন অভিনেত্রী দেশকে এভাবে হেয় করেন কিভাবে।

এছাড়া সাক্ষাৎকারে ভাবনা আরও বলেন- বাংলাদেশ নয়, দুবাই এবং সিঙ্গাপুর থেকেই তিনি শপিং করেন। ইতিমধ্যে তার এ বক্তব্য ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে ছড়িয়ে পড়েছে। এমনকি ওই পোর্টালের প্রকাশিত নিউজের কমেন্ট বক্সেও নানারকম মন্তব্যে জর্জরিত হচ্ছেন ভাবনা।

আরশাদ সোহেল নামে একজন লিখেছেন- ‘ দেশকে এতো হেয় করে সেই দেশে থাকাই উচিৎ না’

প্রিন্স সুজন নামে একজন মন্তব্য করেছেন- ‘এই মাকাল ফল কই থাইকা আসছে ? বাংলাদেশে কোন ব্র্যান্ড নাই !!!!!!!!!!!!!! এই মেয়েকে পাবনার মেন্টাল হাসপাতালে পাঠায় না কেন ?’

ফারজানা সুলতানা নামে একজন ফেসবুকে মন্তব্য করেছেন, কি আমার চেহারা,নাম হচ্ছে পেয়ারা। বিদেশি ব্রান্ডের নাম বললেই ফেমাস হওয়া যায়না। ফুটানি যত্তসব। বিদেশ চলে গেলেই পারে। এখানের কিছুই যখন পছন্দ না।’

এ আর সজীব নামের অপর একজন মন্তব্য করেছেন, ‘আর কিছুদিন পর শুনবো যে আমি বিদেশি খাবার খাই আর বিদেশি হাগু করি’

ইশরাফ রউফ নামের আর একজন লেখেন,

‘okay.. Usually I do not comment on anyone’s personal choice. But this is hurting my conscience…

‘প্রথমত , আপনি কে ?

দ্বিতীয়ত, আপনার IQ লেভেল এত কম কেন ?

তৃতীয়ত, আপনার ব্র্যান্ড সম্পর্কিত অতীব ক্ষুদ্র showoff করতে চান , করেন , কিন্তু আপনার কমন সেন্স এ এটুকু কুলায় নাই যে আপনার use of terminology দেশ আর দেশীয় মানুষজনের কষ্টসাধ্য সৃজনশীলতা কে হেয় করছে ?

আপনি নাকি বাংলাদেশ এর নায়িকা , দেশ এর মানুষ এর ভালোবাসা পাবার যোগ্যতা ই তো আপনার নাই , দেশ কে ছোট করে আপনি কোন খানকার রানী হয়ে যাবেন

চতুর্থত, আপনার ব্র্যান্ড সম্পর্কে জ্ঞান অনেক ক্ষীণ . লেখাপড়া করে থাকলে জানতেন যে ব্র্যান্ড আর লেবেল এর পার্থক্য কোই .

পঞ্চমত, lemme introduce to our bangladeshi brands… দেশ না শুধু , দেশ এর নাম যে মানুষটি বাইরের ফ্যাশন জগৎ এ নিয়ে গেছেন , তার নাম বিবি রাসেল .. Antonio banderas ও তার গামছা স্কার্ফ পরেন. আপনি তো ভারতীয় শাড়ি ছাড়া পড়েন না, ভালই . কোনো সমস্যা দেখি না , কিন্তু আপনার জানা উচিত আমাদের দেশ এর ডিসাইনার দের আমন্ত্রণ জানানো হয়ে ভারত এর ethnic and national fashion fest e. আমাদের জামদানি ভারত নিয়ে নিতে চেয়েছিলো, চেয়েছিলো আমাদের শীতলক্ষার ধার এর শতবর্ষী মসলিন কে GI kore nite. আমাদের ঐতিহ্য এতটাই লোভনীয় …

আমাদের দেশ এর তরুণ ডিসাইনার দের কাজ দেখার সৌভাগ্য হয়তো হয়নি আপনার .. ecstacy, casteye are also international brands now love.

আর যে hm, mango এর কথা বলছেন , জানেন এগুলোর প্রোডিউসার বাংলাদেশ ? হাহাহাহা …

ষষ্ঠত , আপনার এই কথাটা খুব ভাল্লাগসে ..

“আরামের বিষয়টি মাথায় রাখলে কিন্তু আর স্টাইল করা হবে না। ” হাহাহাহাহাহা ..আপনি অনেক স্মার্ট . sarcasm ছিল.

সর্বশেষ এ , আপনি আগে ভালোমতো কথা বলতে শিখেন , কিভাবে কথা বললে আপনার মতামত প্রকাশ হবে আর অন্য কাউকেও ছোট করা হবে না এটা সম্পর্কে তালিম নিন।’ ‘’এরকম তির্যক মন্তব্য বেগবান হচ্ছে সময়ের সাথে।

কমেন্টস