অনুমতি ছাড়াই লেখা হচ্ছে রাজ্জাকের জীবনী, প্রয়োজনে আইনের আশ্রয় নিবে পরিবার

প্রকাশঃ সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৭

Advertisement

নিয়াজ শুভ।।

নায়ক রাজ রাজ্জাকের মৃত্যুর শোক এখনো কাটেনি। পরিবারে তার শূন্যতা এখনো প্রতিমুহূর্তে স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে। শোকের আবহে জড়িয়ে আছে পুরো পরিবার। এমন একটি সময়ে বেশ কয়েকজন রাজ্জাকের জীবনী নিয়ে বই প্রকাশের উদ্যোগ নিয়েছেন। তবে পরিবার সূত্রে জানা যায়, তাদের কেউ এই কিংবদন্তীর পরিবারের কাছ থেকে অনুমতি কিংবা লিখিত ডকুমেন্ট নেন নি।

এরইমধ্যে সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে খ্যাতনামা পরিচালক ছটকু আহমেদ আগামী একুশে বইমেলায় রাজের জীবনী নিয়ে একটি বই প্রকাশের উদ্যোগ নিয়েছেন। তিনি বইটির নাম রাখছেন, ‘নায়করাজ রাজ্জাক-টালিগঞ্জ থেকে ঢালিউড’।

ছটকু আহমেদ তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে জানিয়েছেন, ‘রাজ্জাক ভাইয়ের জীবনী গ্রন্থ প্রকাশনার বিষয়ে বিডি পাবলিকেশনের সাথে চূড়ান্ত কথা হলো।’

এ বিষয়ে নায়ক রাজ রাজ্জাকের ছোট ছেলে সম্রাটের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ‘যে পাবলিকেশন বইটা পাবলিশ করবে বলছে তাদের কাছে আমাদের থেকে দেয়া কোন পারমিশন লেটার বা লিখিত ডকুমেন্ট আছে কি? আব্বা বেঁচে থাকতে দুইদিন ছটকু সাহেব মৌখিকভাবে কথা বলে গেছেন। তখন তাকে বলেছিলেন রেডি করে দেখাতে আর কাজ আগাতে।

আমরা জানলামই না বইটিতে কি কনটেন্ট থাকছে, অথচ আমাদের রেফারেন্স ব্যবহার করছে সবাই। যদি আব্বা কাউকে পারমিশন দিয়েই থাকেন তাহলে সেটার কপি আমরা দেখতে চাই। লক্ষ্য করা যাচ্ছে, অনেকেই এখন বায়োগ্রাফি তৈরি করছেন। যার কিছুই আমাদের অবগত নয়। আমাদের বাবাকে নিয়ে কি লিখা হচ্ছে, কি থাকছে, কোন রেফারেন্স থেকে থাকছে? কনটেন্ট কি যদি না জানি তাহলে আমরা লিগ্যাল পারমিশন কিভাবে দেই?’

তিনি আরো জানান, ‘ছটকু আহমেদ সাহেব সম্মানীয় ব্যক্তি। আমাদের পারিবারিক বন্ধু। উনি বেশ কিছুদিন আগে হঠাৎ এসে ভাইয়ার কাছে বললেন যে, তিনি বইটা লিখে শেষ করতে চান। কিন্তু কে বা কারা সেটা প্রকাশ করবে, কিভাবে করবে, রয়্যালিটি কার কাছে যাবে অফিসিয়াল কিছুই তিনি আলাপ করেননি।

‘টালিগঞ্জ থেকে ঢালিউড’ নামটা মোটেও গ্রহণযোগ্য নয়। আমরা কেন হলিউড বা বলিউডের নামকরণ অনুসরণ করবো? আর যদি করে থাকি, নায়ক রাজ রাজ্জাক সাহেবের সাথে ব্যপারটা মানানসই হলো না। আরেকটু রুচিসম্মত নাম ব্যবহার করা উচিত ছিলো।

শেষ কথা, আমাদের অফিসিয়াল পারমিশন ছাড়া কোন রকম বই বা ডকুমেন্ট যদি তৈরি করে বা পাবলিশ করে আমরা আইনের সাহায্য নিতে বাধ্য হবো।’

Advertisement

Advertisement

কমেন্টস