প্রিয়াঙ্কার সিনেমায় রবিন্দ্রনাথ ঠাকু্র

প্রকাশঃ মে ১৬, ২০১৭

বিডিমর্নিং বিনোদন ডেস্ক-

অভিনেত্রী হিসাবে নয় এবার প্রযোজক হিসাবে বাংলা এবং মারাঠি ভাষায় একযোগে একটি ছবির প্রযোজনা করছেন বলিউড কুইন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। বিশ্বকবির জীবনের এক অপেক্ষাকৃত কম জানা অধ্যায়কে ও রবীন্দ্রনাথের প্রথম প্রেম নিয়ে নির্মিতি হচ্ছে সিনেমাটি।

আগেও ভোজপুরি, মারাঠি, পাঞ্জাবি, সিকিমি, গোয়ান ভাষায় বিভিন্ন সিনেমা প্রযোজনা করেছেন প্রিয়াঙ্কা। তার মধ্যে সম্প্রতি মারাঠি ভাষায় তৈরি ভেন্টিলেটর ছবিটি জাতীয় পুরস্কারের মঞ্চে তিনটি বিভাগে শ্রেষ্ঠত্বের শিরোপা পায়। সেরা পরিচালক, সেরা সম্পাদনা এবং সেরা সাউন্ড মিক্সিং এর জাতীয় পুরস্কার জেতার পর আরো ভালো ভালো গল্প নিয়ে ছবি তৈরির ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রী।

মূলত গল্পের প্লট ১৮৮৭ সালের মুম্বাইয়ে। যেখানে ১৭ বছরের তরুণ রবীন্দ্রনাথ ডা. আত্মারাম পাণ্ডুরঙ্গ-এর বাড়িতে থাকছিলেন। সেখানেই তাঁর পরিচয় হয় আত্মারামের একমাত্র কন্যা অন্নপূর্ণার সঙ্গে। অন্নপূর্ণা সে সময় সদ্য বিলেত থেকে ফিরেছেন। তাই রবীন্দ্রনাথকে ইংরেজি আদবকায়দা সেখানোর দায়ভার পড়ে তাঁর ওপর। তবে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে প্রেমও এগিয়ে চলে। রবীন্দ্রনাথ তাঁর নাম দেন নলিনী। সে নামে একাধিক কবিতাও লেখেন। তবে পিতৃদেবের আজ্ঞা না মেলায় শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ প্রেম নিয়ে ১৮৮০ সালে ফিরে আসেন তরুণ কবি। সে বছরই স্কটল্যান্ড নিবাসী হ্যারল্ড লিটলডেলকে বিয়ে করে দেশ ছেড়ে চলে যান অন্নপূর্ণা।

জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালক উজ্জ্বল চট্টোপাধ্যায় এবং তাঁর স্ত্রী সাগরিকা এই ছবির চিত্রনাট্য লিখে প্রিয়াঙ্কার মা মধু চোপড়ার সঙ্গে দেখা করেন। গল্প শুনে তিনি জানতে চান ঘটনা কত দূর সত্যি। পরে উজ্জ্বল এবং সাগরিকার রিসার্চ দেখে এক কথায় রাজি হয়ে যান ছবিটি প্রযোজনা করতে।

জানা গেছে আগামী অক্টোবর মাস থেকে ছবির শ্যুটিং শুরু হচ্ছে। শান্তি নিকেতনেও ছবির শ্যুটিং হবে জানিয়েছেন পরিচালক।

Advertisement

কমেন্টস