নিজেকে বাঁচাতে মিথ্যা বলছেন না তো বিক্রম?

প্রকাশঃ মে ৯, ২০১৭

বিডিমর্নিং বিনোদন ডেস্ক-

মডেল সোনিকা চৌহান মৃত্যুকাণ্ড ও অভিনেতা বিক্রমের গাড়ি দূর্ঘটনার তদন্তে এবার নতুন মোড় এসেছে। ধারণা করা হচ্ছে বিক্রম নিজেকে বাঁচাতে মিথ্যে তথ্য দিচ্ছেন পুলিশকে। এমনটা ধারণা করা হচ্ছে দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়ির ফরেনসিক রিপোর্ট পাওয়ার পর থেকে। সোমবার ফরেনসিক পরীক্ষার যে প্রাথমিক রিপোর্ট পুলিশের হাতে এসেছে তাতে দেখা গিয়েছে ওই গাড়ির কোনো যান্ত্রিক ত্রুটি ছিল না। অথচ বিক্রম বলেছেন ত্রুটি ছিল।

উল্লেখ্য, গত ২৯ এপ্রিল ভোররাতে বিক্রমের গাড়ি দুর্ঘটনা হয়। এর পরে বিক্রমের পরিবারের পক্ষে দাবি করা হয়, গাড়িটির যান্ত্রিক ত্রুটি ছিল তাই ধাক্কা মারলেও এয়ার ব্যাগ খোলেনি। কিন্তু দেখা যাচ্ছে দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়িতে কোনো যান্ত্রিক ত্রুটি ছিল না। বিক্রম বা সনিকার ভুলেই এয়ার ব্যাগ খোলেনি।

সাধারণ নিয়মানুযায়ী চালক বা তার পাশের আসনে বসা যাত্রীর কমপক্ষে একজন সিট বেল্ট না বাঁধলে এয়ারব্যাগ খোলে না। অত বড় ধাক্কার পরও কেন এয়ার ব্যাগ খোলেনি? এবং  সবিক্রম আর সোনিকার সিট বেল্ট বাঁধা ছিল কি না।

অভিনেতা বিক্রম চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন যে, তিনি সিট বেল্ট বেঁধেছিলেন, কিন্তু সোনিকা বাঁধেনি। কিন্তু প্রশ্ন এটাই যে বিক্রম সাংবাদিক সম্মেলনে সত্যি কথা বলেছিলেন কি? কারণ, তিনি সিট বেল্ট বাঁধলে ওই গাড়িতে থাকা পাঁচটি এয়ার ব্যাগের একটি না একটি অবশ্যই খুলে যেত। কিন্তু দেখা গিয়েছে গাড়ির কোনো এয়ার ব্যাগই খোলেনি। বিক্রম জানিয়েছিলেন তিনি সেই রাতে আদৌ মদ্যপান করেননি। কিন্তু পরে সিসিটিভি ফুটেজে তাঁর হাতে পানীয়র গ্লাস দেখা গিয়েছে। ওই আসরে থাকা অনেকেই ইতিমধ্যে বিক্রমকে মদ্যপান করতে দেখেছেন বলে জানিয়েছেন।

সাংবাদিক সম্মেলন বিক্রম বিস্তারিত কোনো উত্তর না দিয়ে বলেন, পুলিশকে জানানোর আগে তিনি কিছু বলবেন না। অনেক প্রশ্নের উত্তরই তিনি দেননি। সোমবার পর্যন্ত পুলিশের কাছে বয়ান দিতে যাননি বিক্রম।

Advertisement

কমেন্টস