মাহির করা মামলা থেকে দায়মুক্ত সাবেক স্বামী

প্রকাশঃ এপ্রিল ২৬, ২০১৭

বিডিমর্নিং বিনোদন ডেস্ক-

ঢালিউড অভিনেত্রী ও জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা মডেল মাহিয়া মাহি ওরফে শারমিন আক্তার নিপা তার সাবেক স্বামীর বিরুদ্ধে করা মামলার রায় হয়েছে। খালাস পেয়েছে স্বামী শাওন। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মামলা থেকে শাহরিয়ার ইসলাম শাওনকে অব্যাহতি দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

গতকাল মঙ্গলবার ঢাকার সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালের বিচারক সাইফুল ইসলাম পুলিশের প্রতিবেদন গ্রহন করে ওই আদেশ দেন। শুনানির আগে শাওন ট্রাইব্যুনালে হাজির হলেও মাহি আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।

তথ্যগত কোন ভুলের রয়েছে এমন কারণে মামলাটি দায়ের হয়েছে মর্মে চলতি বছরের গত ২৯ জানুয়ারি তদন্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক সোহরাব মিয়া শাওনকে অব্যাহতির সুপারিশ করে প্রতিবেদন দাখিল করেন।

ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি নজরুল ইসলাম শামীম জানান, তদন্ত কর্মকর্তার আবেদন মঞ্জুর হয়েছে।মাহির সাবেক স্বামী শাওনকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। ফলে অভিযাগের দায় থেকে তিনি খালাস পেয়েছেন।

মূলত গত বছরের ২৮ মে নায়িকা মাহি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলাটি করেন। ওইদিনই শাওনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। দুই দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ৩১ মে কারাগারে পাঠানো হয়। ওই বছরের ১৬ জুন তাকে জামিন দেন ট্রাইব্যুনাল।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৫ সালের ১৫ মে নিকাহ রেজিস্ট্রার মো. সালাউদ্দিনের মাধ্যমে শাওনের প-১৩, মধ্যবাড্ডার নিজ বাসায় রেজিস্ট্রি কাবিনের মাধ্যমে শাওন ও মাহির বিয়ে সম্পন্ন হয়। যা কাজির ‘এ’ ভলিউম নং ১৮৬/১৫, পৃষ্ঠা নং-৬৫-তে রেজিস্ট্রি হয়। বিয়ের পরের এক মাসের মধ্যে মাহি চলচিত্রে কাজ শুরু করে।

শাওনের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, দাম্পত্য কলহের জের ধরে উভয়ে আলাদা থাকা শুরু করেন। পরে তাদের মধ্যে খোলা তালাক হয়। বিয়ের পর উভয়ের অন্তরঙ্গ ছবি শাওনের ফেসবুক আইডিতে পোস্ট হয়েছে যা তিনি সরল বিশ্বাসে করেছেন। মাহি পরে অন্যজনের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার সময় ছবিগুলো নজরে আসায় ভুল-বোঝাবুঝি হয়। যার ফলে মামলাটি দায়ের হয়।

কমেন্টস