আমায় ডেকো না, ফেরানো যাবে না

প্রকাশঃ এপ্রিল ২১, ২০১৭

নিয়াজ শুভ।।

‘আমায় ডেকো না/ফেরানো যাবে না/ফেরারী পাখিরা কূলায় ফেরেনা…’ গানটি যেন আজকের কথা ভেবেই কণ্ঠে তুলেছিলেন সদ্য প্রয়াত সংগীততারকা লাকী আখন্দ। তার চলে যাওয়া আর সংগীতের আকাশে একটি নক্ষত্রের হারিয়ে যাওয়া একই কথা। লাকী আখন্দের মৃত্যু অপূরণীয় ক্ষতি। গানের পাখিদের এই ক্ষত সারিয়ে তুলতে বেশ সময়ের প্রয়োজন।

সুরের স্রষ্টা, সঙ্গীত পরিচালক ও গায়ক এর আরেক নাম, লাকী আখন্দ। এই গুণের শিল্পী গানের মাধুর্য্যকে করেছেন নতুন রূপদান। ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে অনেকদিন ধরেই চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। আর পেরে উঠলেন না এই কিংবদন্তী। ওপারের ডাকে সাড়া দিতেই হলো।

নিজেকে গুটিয়ে নিলেন লাকী আখন্দ। সুর সৃষ্টির কাজটিও ছেড়ে গেলেন এ প্রজন্মের কাছে। তাতে কি? জীবনাবসনের আগের সৃষ্টিতেই বেঁচে থাকবেন তিনি। তার কর্ম তাকে বাঁচিয়ে রাখবে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে।

বৈশাখের এক ঝড়ো সন্ধ্যায় মেঘের সঙ্গে সন্ধি গড়লেন সুরের স্রষ্টা। তবে সেই সন্ধি ইচ্ছায়, নাকি অনিচ্ছায় সেটি শুধু তারই জানা। মানুষ নয়, চন্দ্রকারিগরই এখন তার আপন। আর তাই আপনের সুতায় ভর করে তার অচিন যাত্রা। গোপনীয়তা রাখতে সেই যাত্রায় কোন সঙ্গী নেই তার। এক মুহূর্তেই পাড়ি দিয়েছেন শত শত মাইল পথ। সেই পথের শেষ কোথায় সেটি হয়তো লাকী নিজেও জানেন না।

মৃত্যু কি মানুষকে পর করে দেয়? মৃত্যু কি মানুষের ভাষা কেড়ে নেয়? মৃত্যু কি সুর সৃষ্টি বন্ধ করে? মৃত্যু কি মানুষকে আড়াল করে? মৃত্যুর কি মৃত্যু নেই? লাকী আখন্দ কীভাবে মৃত্যুর খোঁজ পেলেন? তিনি কি মৃত্যুকে চিনতেন? মৃত্যু কেন তাকে আপন করতে চেয়েছে? তিনিই বা কেন মৃত্যুকে বরণ করে নিলেন?

প্রশ্নের পর প্রশ্ন ফিরে ফিরে আসবে। কিন্তু লাকী আখন্দ একজনই, যিনি আর কখনো ফিরবেন না। তার সেই পথ নোটিশ ছাড়াই বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তার মৃত্যুই সত্য। অবুঝ মন মানতে না চাইলেও মেনে নিতে হবে। স্বীকার করতে হবে তিনি নেই, তিনি আর কখনো ফিরে আসবেন না।

লাকী আখন্দের সাথে সরাসরি আলাপের সুযোগ হয়নি। হাসপাতালে তার বিছানার পাশে দাঁড়ানোর সৌভাগ্য ছিলো না। যদি থাকতো তাহলে হয়তো তাকে ঘিরে স্মৃতির খাতাটা বেশ ভারী থাকতো। সরাসরি পরিচয়ের সুযোগ না থাকলেও তার সুর, তার গানে তিনি আমার আপনজন। সকলের হৃদয়ে জায়গা করে নেয়া মানুষটি বেঁচে ছিলেন, বেঁচে আছেন, বেঁচে থাকবেন। যতদিন সুর আছে ততদিন তার মৃত্যু নেই।

 

Advertisement

কমেন্টস