গলায় ছেঁড়া জুতার মালা পরতে হবে সোনু নিগামকে

প্রকাশঃ এপ্রিল ২০, ২০১৭

বিডিমর্নিং বিনোদন ডেস্ক-

গত দুদিন আগে টুইটারে ভারতীয় সংগীত তারকা সোনু নিগামের আযান নিয়ে করা টুইটে ঝড় উঠেছে গোটা মুসলিম সম্প্রদায়ে। তাই ফতোয়া হিসেবে সোনুকে বলা হলে সোনু মাথা কামিয়ে ফেলনে। কিন্তু এখন প্রশ্ন ‘আদৌ ফতোয়ার ইনাম পাবেন তো সোনু?’ নাকি গলায় ছেঁড়া জুতার মালা পরতে হবে তাকে?

কিন্তু এবার নতুন দাবী করে বসেন ফতোয়াকারী। কাদরি বলেন, শুধু মাথা কামালেই হবে না তার সঙ্গে গলায় একজোড়া পুরনো ছেঁড়া জুতোর মালা পরে গোটা দেশ ঘুরতে হবে! কাদরি জানান, তিনি হিন্দু এবং একজন মুসলিমই তাঁর মাথা কামাবে।

পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু ইউনাইটেড কাউন্সিলের সহ-সভাপতি তথা মৌলবী সৈয়দ শাহ আতেফ আলি আল কাদরি ফতোয়া জারি করেছিলেন, সোনুর মাথা কামিয়ে গলায় একজোড়া ফাটা জুতোর মালা পরিয়ে গোটা দেশে ঘোরাতে পারলে ১০ লক্ষ টাকা ইনাম দেবেন। সেই ফতোয়ার পাল্টা সোনু নিজের মাথা কামিয়ে নেন। এরপর ইনামের টাকা দাবি করেছেন সোনু। কিন্তু সংবাদ সংস্থা এএনআইকে কাদরি জানিয়েছেন, তিনটের মধ্যে একটি শর্ত পূরণ হয়েছে। বাকি শর্ত পূরণ করলে তবেই ইনাম পাবেন সোনু।

আজান নিয়ে টুইট বিতর্কে সাংবাদিক বৈঠক করে সোনু জানান, তিনি কখনোই মহম্মদকে অপমান করতে চাননি। তাঁর টুইটে মন্দির ও গুরুদ্বারের কথাও ছিল। কিন্তু সে কথা সামনে না এসে শুধু আজানের কথাই সামনে আনা হয়েছে। যার জন্য তিনি বুধবার ফতোয়ার যোগ্য জবাব দিতে সাংবাদিকদের ডেকে মাথা কামিয়েছেন।

টুইট করে একথা জানিয়েছিলেন সোনু এবার নিজের মুখে জানান যে, তিনি ইসলাম বিরোধী নন। তিনি শুধু জানাতে চেয়েছিলেন, লাউডস্পিকারের ব্যবহার কোন ধর্মীয় প্রয়োজনীয়তা নয়। আমেরিকা বা অস্ট্রেলিয়ার মতো দেশে তা করা হয় না।

সোনু নিগামের দাবি তিনি সাধারণ একটি বিষয়ে কথা বলেছিলেন। তা নিয়ে অনর্থক জটিলতা তৈরি করা হয়েছে। প্রত্যেকেরই মতপ্রকাশের স্বাধীনতা আছে। সেরকমই তিনি একটি বিষয়ে মতামত জানিয়েছিলেন। তাঁর এই মন্তব্যের জেরেই তাঁর বিরুদ্ধে ফতোয়া জারি করেছিল পশ্চিমবঙ্গের ওই মুসলিম সংগঠন।

Advertisement

কমেন্টস