নয় বছর দেখা নেই মান্নার

প্রকাশঃ ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৭

নিয়াজ শুভ।।

কেটে গেছে নয়টি বছর। আকাশের ওপারে বাসা বেঁধেছেন প্রয়াত চিত্রনায়ক মান্না। তার সেই যাত্রাপথ থেকে কেউ ফেরাতে পারেনি। সকলের চোখ ফাঁকি দিয়ে চন্দ্রকারিগরের সঙ্গে সখ্য গড়েছেন তিনি।

২০০৮ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আকস্মিক মৃত্যু হয় মান্নার। তার না ফেরার দেশে যাওয়ার ৯ বছর পূর্ণ হলো আজ। নয় বছর আগে ঠিক এমনই এক উজ্জ্বল দিনে কোটি ভক্তের চোখে কান্নার জল বইয়ে দিয়েছিলেন শক্তিমান এই অভিনেতা।

দিনটির স্মরণ করে মান্না ফাউন্ডেশন আজ দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। প্রয়াত মান্নার স্ত্রী ও ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান শেলী মান্না রাজধানীর উত্তরার বাসায় কোরআন খতম ও দোয়ার অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন।অনুষ্ঠানে চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট অনেকেরই উপস্থিত থাকবেন।

অন্যদিকে প্রয়াত মান্নাকে স্বরণ করে বাদ আসর এফডিসির জামে মসজিদে শিল্পী সমিতির পক্ষ থেকে দোয়ার অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

মান্নার শূন্যতা পূরণ হওয়ার নয়। চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা আজও মান্নার অভাব অনুভব করেন। ভক্তদের কথা বলে শেষ করা যাবে না। প্রিয় নায়ককে হারানোর ব্যথা আজও তাদের হৃদয় চিড়ে রক্তক্ষরণ করে।

আন্দোলনের অন্য নাম মান্না। মান্নাহীন আন্দোলন যেন কোন ছন্দ খুঁজে পায় না। তিনি শুধু একজন অভিনেতাই ছিলেন না। তার প্রতিটি শিরা , উপ-শিরায় ছিলো সিনেমা প্রেম। আর সেই তাগিদেই অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছেন তিনি।

অশ্লীল ছবির বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে গিয়ে মান্নাকে অস্ত্রের সামনে পড়তে হয়েছিল। তারপরও দমানো যায়নি তাকে। চলচ্চিত্রের অশ্লীলতা বন্ধে তার ভূমিকা ছিল মনে রাখার মতো।

১৯৮৪ সালে বিএফডিসি আয়োজিত ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ আয়োজনের মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় মান্নার।তার অভিনীত প্রথম ছবি ‘তওবা’(১৯৮৪)। এরপর একে একে প্রায় সাড়ে তিন’শ ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি। পর্দায় মান্নার অভাব কখনো পূরণ হবে না। মান্না বেঁচে আছে তার কোটি ভক্তের হৃদয়ে। থাকবে সারাজীবন। ভালো থাকুক মান্না, ভালো থাকুক সব স্মৃতি।

Advertisement

কমেন্টস