এখনো বিয়ের সৌভাগ্য হয়নিঃ আফফান মিতুল

প্রকাশঃ সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৬

অভিনয় জীবনে চলার পথে যেমন আলোর ঝলকানি, তেমনই রয়েছে দুর্গম পথ। সকলের জন্য এই পথটি সুগম নয়। কাউকে বিভিন্ন চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়ে শেখরে পৌঁছাতে হয়। তেমনই একজন বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় অভিনেতা আফফান মিতুল। যে কোন চরিত্রের সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে নিয়ে উপহার দিচ্ছেন একের পর এক জনপ্রিয় নাটক এবং সিনেমা। এই অভিনেতার চলমান ক্যারিয়ার এবং ব্যক্তি মিতুলকে নিয়ে কথা হলো বিডিমর্নিং এর সাথে। সাক্ষাতে ছিলেন জুনায়েদ সানি-

কেমন আছেন?

আফফান মিতুলঃ ভালো।

ব্যস্ততা কেমন চলছে?

আফফান মিতুলঃ বেশ কিছু নাটক এবং চলচ্চিত্রে কাজ করছি। তাই সব মিলিয়ে খুবই ব্যস্ততার মধ্যে যাচ্ছে।

অভিনেতা হওয়ার স্বপ্ন ছিলো?

আফফান মিতুলঃ স্কুল জীবন থেকে। স্কুলে শিক্ষকরা যখন সবাইকে জিজ্ঞেস করতো কে কি হবে? সবাই বলতো ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, পাইলট ইত্যাদি ইত্যাদি। শুধু আমি বলতাম নায়ক হবো। তখন তো বুঝতাম না, এখন হলে বলতাম আমি অভিনয়শিল্পী হবো।

যাত্রা শুরুর গল্পটা…

আফফান মিতুলঃ সেই স্কুল জীবন থেকেই চলেছিলো আমার চেষ্টা। মিডিয়ায় আসার জন্য আমাকে বেশ খাটতে হয়েছে। কত পরিচালকের অপমান মুখ বুঝে সহ্য করেছি, তা বলে বুঝাতে পারবো না। অবশেষে ২০০৮ সালের ২৩ কিংবা ২৫ ডিসেম্বর হুমায়ূন আহমেদের ‘নতুন মুখের সন্ধান’ কর্মশালার মাধ্যমেই মিডিয়াতে যাত্রা শুরু। সেখানে শত শত ছেলে-মেয়ের মধ্যে আমি এবং আরো দু’জন নির্বাচিত হই।

ক্যামেরার সামনে প্রথম কাজের অভিজ্ঞতা…

আফফান মিতুলঃ সে এক ভয়ানক অবস্থা। স্বাভাবিকভাবেই বেশ নার্ভাস ছিলাম। তার উপর হুমায়ূন আহমেদের কাজ বলে কথা।

অভিনেতা হিসেবে প্রাপ্তি?

আফফান মিতুলঃ অভিনয়ের শুরু থেকেই প্রাপ্তির খাতায় নাম লিখিয়েছি। এখন পর্যন্ত তিন শতাধিক নাটক এবং ১১টি চলচ্চিত্রে কাজ করেছি। সবগুলোতেই আমি বেশ গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে পর্দায় হাজির হয়েছি। তবে আমার সব কাজকে ছাড়িয়ে যাবে ‘কাকতাড়ুয়া’ ছবিটি। এছাড়া আমার অভিনীত ‘নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ’ ছবিটি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছে।

বিয়ে করছেন কবে?

আফফান মিতুলঃ এখনো সেই সৌভাগ্য হয়নি।তবে আম্মুকে মেয়ে দেখার জন্য বলে দিয়েছি। দু’এক বছরের মধ্যেই বিয়েটা সেরে ফেলবো।

এতক্ষণ সময় দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

আফফান মিতুলঃ আপনাকেও ধন্যবাদ।

কমেন্টস